অপমানে-লজ্জায় বাড়ি ছেড়ে বিদায় নিলেন গুনগুনের শ্বশুরমশাই, বাড়িতে পৌঁছল দুঃসংবাদ

News Desk

April 27, 2021 | 5:24 PM
blog image

ধারাবাহিক জগতে এখন অন্যতম জনপ্রিয় ধারাবাহিক হলো ‘খড়কুটো’। স্টার জলসার এই ধারাবাহিক খুব অল্প সময়ের মধ্যেই সবার মন জয় করে নিয়েছে। এই ধারাবাহিকে সৌজন্য এবং গুনগুনের মিষ্টি প্রেমের গল্প দেখানো হয়েছে। এই দুই চরিত্র এখন হয়ে উঠেছে বাংলার প্রতিটা বাড়ির অত্যন্ত প্রিয় সদস্য।

এই ধারাবাহিকের গল্পে আসতে চলেছে নতুন মোড়। মুখার্জী বাড়িতে বইছে খুশীর হাওয়া। এই সুখবর সৌজন্য এবং গুনগুনের হাত ধরে কিন্তু আসছে না। পরিবারকে এই সুখবর এনে দিয়েছেন বাড়ির আরেক মিষ্টি জুটি ঋজু ও মিষ্টি। নববর্ষের প্রথম দিনেই মিষ্টির শরীর হয় ভীষণ খারাপ। সারাদিন শুধু বমি করছিল সে। তবে তার এই বমি করার মধ্যেই খুশীর খবর খুঁজে পান বাড়ির বড়রা। অবশ্য এসব কিছুই বুঝে উঠতে পারেনি গুনগুন। অনেক রকমভাবে সৌজন্য অবশেষে গুণগুণকে গোটা ব্যাপারটা বোঝায়।

আরও পড়ুন :   বৌভাতে নর-নারায়ণ সেবা দিলেন সোহিনী গুহা রায়, অভিনেত্রীর কাজে খুশি হয়ে শুভেচ্ছা নেটিজেনদের

এই বাড়িতে নতুন সদস্য আসার খুশী উদযাপন করার জন্য পয়লা বৈশাখের পর পাড়াতে স্পোর্টসের আয়োজন করা হয়। তবে এই হাসি আনন্দের মাঝেই গল্পে আসে নতুন ট্যুইস্ট। প্রায় দেড় বছর আগে এক সুদখোরের কাছ থেকে গুণগুণের শ্বশুর মশাই ভজন বাবু। তারপর ওই সুদখোরের দল ভজন বাবুকে অফিসে না পেয়ে বাড়িতে হানা দেয়। বাড়িতে এসে পটকা এবং বড়দার সাথে খারাপ ব্যবহার করে তারা। তারপর ভজন বাবু জানান যে তিনি টাকা ধার নিয়েছিলেন। এরপরেই ব্যাঙ্কের ফিক্স ডিপোজিট ভাঙিয়ে সমস্ত ধার শোধ করেন।

গুণগুণ এবং বাড়ির বাকি সদস্যরা ভোজন বাবুকে নানাভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করেন টাকা কোথায় খরচ হয়েছে তাই নিয়ে। মেজো মা রীতিমতো অপমান করেন ভোজন বাবুকে। তারপরেও কোনো উত্তর দেননি তিনি। এরপর ধারাবাহিকের প্রোমোতে দেখানো হয় যে ভোজন বাবু একটা‌ চিঠি লিখে বাড়ি ছেড়ে চলে যান। তারপরে অনেক খোঁজাখুঁজির পরেও বাবাকে খুঁজে না পেয়ে প্রতিবাদ জানায় গুণগুণ। তারপর হঠাৎ করেই পাড়ার লোকেরা এসে খবর দেয় যে রেললাইনের পিছনে একজন চাপা পড়েছে। নিজের শ্বশুর মশাইকে কি ফিরিয়ে আনতে পারবে গুণগুণ? জানতে হলে দেখতেই হবে খড়কুটো সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় স্টার জলসায়।