অল্প বয়সে বাবা-মাকে হারিয়েছেন, বাস্তব জীবনের ‘জবা’-র গল্প হার মানবে সিনেমার কাহিনীকে

News Desk

June 11, 2021 | 8:00 AM
blog image

প্রথম বার দিদি নং ১-এ এসে উচ্ছ্বসিত পল্লবী শর্মা। তবে অবশ‍্য তিনি, ‘জবা’ নামেই দর্শকদের কাছে বেশি জনপ্রিয়। ‘কে আপন কে পর’ ধারাবাহিকের জবা।

শোনালেন তার জীবনের কথা, হাওড়ার মেয়ে পল্লবী। তিনি ভবানীপুর কলেজের প্রাক্তন ছাত্রী। ছোটবেলাতেই বাবা-মাকে হারিয়েছেন। বর্তমানে দাদা-বৌদির সঙ্গে থাকেন। একটি ছোট ভাইঝিও আছে।


ভিডিও


আরও পড়ুন :   আমরা নতুন ধারাবাহিকে ‘শন-অনামিকা’জুটি চাই, উত্তরে কি বললেন ‘শন’ ?

ধারাবাহিকের মতো তার জীবনেও ওঠা পরা কম নয়। ক্লাস ২-৩ তে পড়াকালীন তাঁর মায়ের ব্রেন টিউমার ধরা পড়ে। বাবা এবং দাদা তাঁর মাকে চিকিৎসার জন্য চেন্নাই, বেঙ্গালুরু যাতায়াত করতেন প্রায়শই। তখন থেকে পিসির কাছেই মায়ের মতো আদরেই মানুষ পল্লবী।

অভিনয় জগতে পথ চলা শুরু সেই পিসির সূত্রেই। তাঁর পিসি আগে অভিনয় করতেন। সেই সূত্রে পিসির সঙ্গে বহুবার স্টুডিওতে যাওয়ার সুযোগ ঘটে। সেখানেই এক পরিচালকের সঙ্গে পরিচয় হয়। ধারবাহিকের জন্য অফার পান তিনি। এভাবেই ধারাবাহিকে পথ চলা শুরু তাঁর।

আরও পড়ুন :   করোনার ভ্যাকসিন নিতে গিয়ে ব্যাথা পেলেন বৃদ্ধা, চিৎকার করে নার্সকে দিলেন গালি, ভাইরাল ভিডিও

ক্লাস টেনে পড়ার সময় আইসিএসই-র প্রথম পরীক্ষার দিন সকালে তাঁর বাবার মৃত্যু হয়। তবে বাবার কথা রাখতে পরীক্ষায় বসেন পল্লবী। পরীক্ষা দিয়ে ফিরলে, বাবার সৎকার কাজ সম্পন্ন হয়।

আরও পড়ুন :   ছেলেকে খাওয়াতে গিয়ে নাজেহাল পূজা, একরত্তির সঙ্গে খুনসুটিতে মাতলেন অভিনেত্রী

আসলে জীবনের গল্পই আরো একটু রঙিন উপস্থাপনা হয় পর্দায়। সেই পরিস্থিতিতে নিজেকে সামলানোর গল্প বললেন বাস্তবের পল্লবী ওরফে পর্দার জবা। দর্শকদের ভালবাসা পেয়ে নিজেকে ভাগ্যবান মনে করেন পল্লবী।