কুৎসা রটানোর পাশাপাশি হয়েছে যৌন হেনস্তা, অপমানে দল ছাড়লেন তৃতীয় লিঙ্গের প্রার্থী

কেরলের নির্বাচনে ডেমোক্রেটিক সোশ্যাল জাস্টিস পার্টি প্রথম ভোটে দাঁড়িয়ে ছিলেন একজন রূপান্তরকামী মহিলা অনন্যা কুমারী এলেক্স। পুরো পথটা যদি সম্পূর্ণ করতেন তাহলে হয়তো দেশের মাটিতে ইতিহাস তৈরি হতো। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর ইতিহাসটা তৈরি হলোনা। তার বিরুদ্ধে কুৎসা রটানোর পাশাপাশি তাকে নানান রকম ভাবে যৌন হেনস্তাও করা হয়েছে।

সংবাদ পড়ার সাথে সাথে তিনি ছিলেন কেরলের প্রথম রেডিও জকি। মাত্র ২৮ বছর বয়সেই তিনি তার কর্মজীবনের শুরু পৌঁছতে সক্ষম হয়েছিলেন। সবকিছুতে সাফল্য অর্জন করলেও সাফল্য আসেনি রাজনীতিতে। প্রথমে অনেক লড়াইয়ের সম্মুখীন হয়েও মনের জোরে এগিয়ে যাচ্ছিলেন তিনি কিন্তু পরবর্তীকালে আর না পেরে রাজনীতির মঞ্চ থেকে ফিরে আসতে বাধ্য হন।

লিঙ্গ বৈষম্য, লাঞ্ছনার শিকার হতে হয়েছে তাকে। তবে সবার কাছে তিনি আরজি করেছেন তিনি যে দল থেকে ফিরে আসতে বাধ্য হয়েছেন সেই দলকে কেউ যেন ভোট না দেয়। অনেক আশা ছিল, ভোটে জিতে রূপান্তরকামী মানুষের সমান অধিকারের জন্য লড়াই করবেন কিন্তু শেষমেশ সমস্ত আশাই নষ্ট হয়ে গেল। তবে শেষ পর্যন্ত তিনি সবার সামনে ঘোষণা করে দিয়েছেন রাজনীতির মঞ্চে আর তাকে কোনদিন কেউ দেখতে পাবে না। একরাশ মনে কষ্ট নিয়ে এবং বিরক্ত নিয়ে অবশেষে ত্যাগ করেছেন রাজনীতির মঞ্চ।