গ্রামের রাস্তায় স্ত্রীর সঙ্গে দারুন স্টাইলে নাচ করলেন স্বামী, নেটদুনিয়ায় তুমুল ভাইরাল ভিডিও

আচ্ছা যাঁদের দর্শন পাবার আশায় আমরা সারা বচ্ছর প্রতীক্ষা করি। যেমন সিনেমার হিরো-হিরোইন বা অন্যান্য ভূমিকায় যাঁরা অবতীর্ণ হন তাঁদের দেখার আশায় আমরা লাইন দিয়ে টিকিট কাটি। অথবা শুটিং দেখার লোভে স্টুডিওর সেটে উঁকি-ঝুঁকি মারি অমুক হিরো, তমুক হিরোইনদের বদন দর্শন করে নিজেদের ধন্য মনে করি। কিন্তু বাস্তবের হিরো-হিরোইনকে কি দেখেছেন কখনও! বাস্তবে এমন অনেক মানুষ আছেন যাদের ট্যালেন্ট প্রকাশ্যে এলেও সেই মারফত কোনও গুরুত্ব পায়না। আবার তারা যখন সাধারন পোশাকে নাচ করে নিজেদের প্রতিভা প্রদর্শন করতে চান তখনি শুরু হয়ে যায় মজার মন্তব্য, গরীবের শাহরুখ বা গরীবের অমুক নামে ডাকা।

তবে এই প্রতিভা প্রদর্শনের জন্য একমাত্র মাধ্যম ছিল জনপ্রিয় চাইনিজ এপ টিকটক। যেটি গতবছরই ব্যান করে দিয়েছে ভারতীয় সরকার। এর নেপথ্যে ছিল অনেক কারণ। যাই হোক সেসব অন্য কথা! টিকটক ব্যান হয়ে যাওয়ায় রাতারাতি অনেক ট্যালেন্ট লুপ্ত হয়ে গিয়েছে। যার মধ্যে একজন ছিলেন প্রকাশ চৌহান। টিকটক ব্যান হওয়ার আগে থেকেই তিনি নিজের স্ত্রীকে নিয়ে বলিউড সহ অন্যান্য গানের তালে নাচতেন। তাতে না ছিল সুসজ্জিত সেট না অভিনব পোশাক। আর্থিক সঙ্গতিও তাদের সেরকম নেই যে অভিনব পোশাক পরে নাচবেন, শুধুমাত্র যেটা ছিল সেটা প্রতিভা। সেই সময়ে শুধুমাত্র নৃত্য পরিবেশন করেই নজর কেড়েছিলেন তিনি সকলের।

যদিও বা তাদের শুরুটা এতটা সহজ ছিল না। প্রকাশ ক্লাস সিক্সে পড়ার সময় নেচে 1001 টাকা পেয়েছিলেন। কিন্তু চোখে সমস্যা থাকায় পড়াশোনা বেশীদূর এগোয়নি। তারপর চাষবাস কাজ এসবে তার সেই প্রতিভা প্রায় হারিয়ে গিয়েছিল। তবে নিজের অদম্য ইচ্ছের জোরে আর নাচের স্মৃতি বাচিয়ে রাখতেই প্রথম টিকটক এ ভিডিও বানানো শুরু করেন তিনি। তবে গরিব বলে তাঁকে শুনতে হয়েছিল নানা কটু কথা, স্ত্রীকে নিয়ে নাচ শুরু করার পরও সেই অপমান পিছু ছাড়েনি। বহু গ্রামবাসী তাদের নিয়ে ঠাট্টা করেছেন। কিন্তু কিছুতেই হার মানেননি তারা। বর্তমানে তাদের জনপ্রিয়তা বেড়েছে‌।

তবে টিকটক ব্যানের পর রাতারাতি টিকটক স্টারেরা সবাই ইনস্টাগ্রামে এসে ভীড় জমিয়েছে, এখন সেখান থেকেই টিকটক স্টারেরা হয়ে উঠছেন রাতারাতি স্টার। তার মধ্যে প্রকাশও রয়েছেন ইনস্টাগ্রামে। তাদের অনেকেই ফলো করেন। তার পোস্ট করা ভিডিও মানেই এখন ভাইরাল। সম্প্রতি মিস্টার খিলাড়ি সিনেমার “আকেলা হ্যায় মিস্টার খিলাড়ি” গানের তালে তুমুল নেচে আবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হলেন প্রকাশ ও তার স্ত্রী বর্ষা। তবে এই ভিডিওর মাধ্যমেই এখন আয় করেন তাঁরা। দেশ জুড়ে বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে পড়েছে তাদের প্রতিভাও। অনেকের আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছেন প্রকাশ ও তাঁর স্ত্রী।