রাজ্য

ন্যায্যমূল্যে জৈব সানিটাইজার বিক্রি করছে রাজ্য

এবার ন্যায্য মূল্যে জৈব সানিটাইজার বিক্রি করছে রাজ্য সরকার। পঞ্চায়েত দফতরের অধীনস্থ সিএডিসি বা সামগ্রিক এলাকা উন্নয়ন পর্ষদ এই উদ্যোগ নিয়েছে।

পর্ষদের প্রশাসনিক সচিব সৌম্যজিত্‍ দাস জানিয়েছেন, ”সল্টলেকের পঞ্চায়েত ভবন ও মৃত্তিকা ভবনের স্টলে ন্যায্য মূল্যে স্যানিটাইজ়ার বিক্রিও করা হচ্ছে। এ ছাড়া, সল্টলেকে ই-রিকশায় করেও বিক্রি হচ্ছে স্যানিটাইজ়ার।”

[আরও পড়ুনঃ অবশেষে ফাঁসি হল নির্ভয়ার চার ধর্ষক-হত্যাকারীর]

পর্ষদ জানিয়েছে, ১৫, ৩০ এবং ৬০ মিলিলিটারের স্যানিটাইজ়ারের দাম ধার্য করা হয়েছে যথাক্রমে ২০, ৪০ ও ৬০ টাকা। করোনার হাত থেকে বাঁচতে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারের কথা বলা হচ্ছে।

ফলে বাজারে এই দুইয়েরই চাহিদা বেড়েছে। হঠাত্‍ বাড়তি চাহিদার কারণে বাজারে অমিল স্যানিটাইজার ও মাস্ক। যেখানে পাওয়া যাচ্ছে সেখানে চড়া দামে বিকোচ্ছে।এই পরিস্থিতিতে মানুষের পাশে দাঁড়াতে উদ্যোগী হয়েছে পঞ্চায়েত দফতরের অধীনস্থ সিএডিসি বা সামগ্রিক এলাকা উন্নয়ন পর্ষদ।

পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, শিলিগুড়ি, উত্তর ২৪ পরগনা, হুগলি ও বর্ধমানে পর্ষদের খামারে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলারাই তৈরি করছেন হ্যান্ড স্যানিটাইজ়ার। সেই স্যানিটাইজারই ন্যায্যমূল্যে বিক্রি করছে পর্ষদ।

সচিব সৌম্যজিত্‍ দাস জানিয়েছেন, ”১৫, ৩০ এবং ৬০ মিলিলিটার আয়তনের স্যানিটাইজ়ারের বোতলে থাকছে ৬০ শতাংশ অ্যালকোহল, ৩০ শতাংশ অ্যালোভেরা ক্রিম ও গ্লিসারিনের মিশ্রণ এবং ১০ শতাংশ বিভিন্ন ধরনের প্রয়োজনীয় তেল।”

Related Articles

Back to top button