সর্বশেষ

‘বিজেপির চাপেই আমাদের তিনজনের মৃত্যু’, বিস্ফোরক মমতা

বুধবার সকালে প্রথমে টেকনিশিয়ান স্টুডিওতে নিয়ে যাওয়া হয় অভিনেতা তাপস পালের মরদেহ । সেখানে ১০ মিনিট তাঁর মরদেহ রাখা ছিল। এরপর সেখান থেকে তাঁর মরদেহ নিয়ে আসা হয় রবীন্দ্র সদনে। সকলের শ্রদ্ধাজ্ঞাপানের জন্য রবীন্দ্র সদনেই বেলা একটা পর্যন্ত শায়িত থাকবে মরদেহ। রবীন্দ্রসদনে তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন রবীন্দ্র সদনে তাপস পালকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে এসে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন মুখ্যমন্ত্রী। অভিনেতা তথা প্রাক্তন সাংসদ তাপস পাল, সুলতান আহমেদ এবং প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রীর অকাল প্রয়াণ নিয়ে মুখ খোলেন তিনি।

মৃত্যুর আগে তাঁদের অপরাধ কোথায় ছিল জানতে চান বিজেপির কাছে। শুধু তাই নয়, তিনি আরও বলেন, ‘বিজেপির চাপে পড়ে, রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় ক্ষত বিক্ষত হয়ে গিয়েছে আমাদের তিন জন।’

তিনি আরও বলেন, কেন্দ্রীয় সরকারের জঘন্য প্রতিহিংসাপরায়ন নীতির জন্য সুলতান আহমেদ, প্রসূন বন্দোপাধ্যায়ের স্ত্রীর এবং আমাদের তাপসের অকাল প্রয়াণ হয়েছে। যে অন্যায় করবে তার নিশ্চয় বিচার হওয়া উচিত। তাই বলে মানসিক লাঞ্ছনা, গঞ্জনা সহ্য করে দুর্দশাগ্রস্ত অবস্থায় তাঁদের এই অকালে ফুরিয়ে যাওয়া মেনে নেওয়া যায় না।’

এদিন মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘শিল্পীরা তো কাজ করবেই। বিভিন্ন চ্যানেল, প্রোডাকশন হাউস এবং ব্র্যান্ড আম্বাস্যাডার হিসেবে বিভিন্ন সময়ে সেই কাজ করতে গিয়ে তাঁদের জীবন দুর্বিষহ ভাবে অকালে ঝড়ে যাচ্ছে।’
এদিন রবীন্দ্র সদনে উপস্থিত হয়ে প্রথমে তাপস পালের মরদেহে শেষ শ্রদ্ধা জানান মুখ্যমন্ত্রী। তারপরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, ‘ তাপস পাল আজকে ফুরিয়ে গেল, তাঁর তো যাওয়ার কথা নয়।

তাপসের মুখের দিকে তাকাতে পারছি না। অসময়ে দামী প্রাণ গুলি চলে যাচ্ছে।’ শুধু তাপস পালের কথায় নয়, পরিচালক শ্রীকান্ত মেহতার প্রসঙ্গও উত্থাপন করে তিনি আরও বলেন, ‘শ্রীকান্ত মেহতারও জেল হয়েছে। গত একবছর ধরে তিনিও অসুস্থ। তাপসের চলে যাওয়া শুধু চলে যাওয়া নয়, ‘দাদার কীর্তি’র মধ্যদিয়ে সে সারাজীবন স্বরনিয় হয়ে থাকবে। বিশিষ্ট এই অভিনেতা তথা রাজনীতিকের চলে যাওয়া এক অপূরণীয় ক্ষতি। আমরা সবাই ব্যথিত।’ এদিন মুখ্যমন্ত্রী বিশিষ্ট এই অভিনেতাকে শেষ শ্রদ্ধা জানানোর পাশাপাশি তাঁর স্ত্রী, মেয়ে এবং টলিউডের সমস্ত কলাকুশলীদেরও সমবেদনা জানান তিনি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button