বিশ্বকাপ জয়ের ১০ বছর পূর্তির দিন হাসপাতালে ভর্তি সচিন, আরোগ্য কামনা দেশজুড়ে

News Desk

April 2, 2021 | 5:43 PM
blog image

২০২০ সালে করোনার দাপটে অনেক মানুষই মারা গিয়েছিলেন, রক্ষা পায়নি চলচ্চিত্র মহলও। অনেক নামী দামী তারকারা করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন, আবার অনেকে মারাও গিয়েছিলেন। তাদের মধ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে পড়েছিলেন টলি বলি সকল চলচ্চিত্র মহল। এমনকি করোনার প্রকোপ পড়েছিল ক্রিকেট মহলেও। বিখ্যাত ক্রিকেটের সচিন তেন্ডুলকর তিনিও করোনা থেকে মুক্তি পায়নি। এই মারন ভাইরাস বাসা বেঁধেছিল সচীনের শরীরেও।

তবে তিনি এখন করোনার বিধির আরও সাবধানতা পালনের জন্য হাসপাতালে ভর্তি হলেন। তাও এমন একটা দিনে, যেদিনে আজ থেকে ১০ বছর আগে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়েছিল মহেন্দ্র সিংহ ধোনির ক্যাপ্টেনশিপে ভারত। যে দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন সচিন তেন্ডুলকর। তবে তিনি নিজেই জানিয়েছেন, চিকিৎসকদের পরামর্শেই শেষ পর্যন্ত আরো সাবধানতা প্রতিফালনের জন্য হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে তাঁকে।


ভিডিও


সচিন নিজেই ট্যুইট করে নিজেই নিজের অসুস্থতার কথা জানিয়েছেন সচীন। স্বাভাবিকভাবেই কিংবদন্তির ট্যুইট ভাইরাল হওয়ার পরেই শোকে কাতর হয়ে গিয়েছেন সচীনের তামাম ভক্তকূল। সকলেই সচিনের শারীরিক অবস্থা নিয়ে চিন্তিত। তবে ভক্তদের আশ্বস্ত করেছেন সচীন জানিয়েছেন, ‘তিনি এখন সুস্থ, আর দু একদিনের মধ্যেই তাঁকে ছেড়ে দেয়া হবে, বাড়ি ফিরতে পারবেন তিনি’। শুক্রবার সকাল ১১টা নাগাদ ট্যুইট করে সচিন লেখেন, ‘আপনাদের শুভেচ্ছা ও প্রার্থনার জন্য ধন্যবাদ। চিকিৎসকদের পরামর্শে সাবধানতা হিসাবেই হাসপাতালে ভর্তি হয়েছি। কয়েকদিনের মধ্যেই বাড়ি ফিরে যাওয়ার আশা করছি। প্রত্যেকে সাবধানে থাকুন ও সতর্ক থাকুন।’

আরও পড়ুন :   প্যান্ট ছিঁড়ে খসে যাচ্ছে, করুন অবস্থা রাখি সাওয়ান্তের! ভিডিও তুমুল ভাইরাল

এছাড়া ভারতের বিশ্বকাপ জয়ের ১০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যেও সচীন জানিয়েছেন, ‘আমাদের বিশ্বকাপ জয়ের দশ বছর পূর্তিতে সমস্ত ভারতীয়দের এবং আমার সতীর্থদের শুভেচ্ছা জানাই।’ গত ২৭ মার্চ করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর নিজেই জানিয়েছিলেন এই লেজেন্ড ক্রিকেটের। মাস্টার ব্লাস্টার জানিয়েছিলেন, ‘কোভিডকে দূরে রাখার জন্য আমি পরীক্ষা করিয়ে নিচ্ছিলাম এবং সবরকমের সতর্কতা অবলম্বন করছিলাম। কিন্তু মুদৃ উপসর্গের পর আজ আমার করোনাভাইরাস রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। বাড়ির বাকি সকলের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। তবে সাবধানতার জন্য আমি নিজেকে কোয়ারেন্টাইন জোনে রেখেছি।’

উল্লেখ্য, ১০ বছর আগে আজকেরই দিনে দেশের মাটিতে ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ভারত। সেই দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন সচিন তেন্ডুলকর। সেটিই ছিল সচিনের কেরিয়ারের শেষ বিশ্বকাপ। ১৯৯২ থেকে লাগাতার চেষ্টা করে শেষ পর্যন্ত ষষ্ঠবার দেশের হয়ে কাপ হাতে তুলতে পেরে সচিন স্বর্গসুখ পেয়েছিলেন, তা অনেকবার জানিয়েছেন মাস্টার ব্লাস্টার। তবে এখন তিনি অসুস্থ কিন্তু এই আবেগের টানেই অসুস্থতার মধ্যেও দেশের সকল নাগরিক ও ২০১১ বিশ্বকাপ জয়ী দলের সব সদস্যকে শুভেচ্ছা জানালেন এই লেজেন্ড্রারি ব্যাটসম্যান।

আরও পড়ুন :  

তবে জানা গিয়েছে, সপ্তাহ দুয়েক আগে রায়পুরে রোড সেফটি ওয়ার্ল্ড সিরিজ অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সেখানে সচিন তেন্ডুলকরের নেতৃত্বে অংশ নিয়েছিলেন ভারতীয় আরও লেজেন্ডরা। আর ওই টুর্নামেন্ট শেষ হওয়ার কিছুদিন পরেই সচিনের শরীরে কোভিড ১৯-এর সংক্রমণ ধরা পড়ে। তবে সচিনের এই করোনা আক্রান্ত হওয়াটাকে ভালো মত নেননি ভারতীয় ক্রিকেট মহল। তারা রোড সেফটি ওয়ার্ল্ড সিরিজের ওপর দায় চাপাচ্ছে।

আরও পড়ুন :   উরুর মাঝে জ্বলজ্বল করছে কালো ট্যাটু, মধুমিতার হটনেসে ঘায়েল নেটজনতা, ভাইরাল ভিডিও