মনের আনন্দে সুরেলা কন্ঠে গান গাইছে বাঘ মামা, ঝড়ের গতিতে ভাইরাল ভিডিও

মনে পড়ে, গুপী-বাঘার “পায়ে পড়ি বাঘ মামা…” গানের সেই রোমহর্ষক দৃশ‍্য। কিন্তু বাস্তবে গুপী বাঘা নয় গান গাইছেন স্বয়ং রাজামশাইয়ের উত্তরসূরী। মুহুর্তেই গায়ক দক্ষিনরায় ভাইরালে নায়ক বনে গেলেন সোশ‍্যাল মিডিয়ায়।

২০২০ সালের জুন মাসে জন্ম হয় বাঘটির।কথায় বলে ‘বাঘের বাচ্ছা’, কিন্তু বাস্তবে ওমন গাম্ভীর্য ভরা চেহারার ভেতরে যেন স্বয়ং সরস্বতীর অবস্থান। রয়টার্সের তরফে পোস্ট করা হয় ঐ ভিডিওটি, রাশিয়ার সাইবেরিয়ার চিড়িয়াখানার, যেখানে হদিশ মিলল এমনই এক বাঘের ছানা, যার সুরেলা ‘হালুম’ ডাকে আহ্লাদিত দর্শক।

ভিটাস নামের সেই বাঘ্র‍ শাবককে দেখতে প্রতিদিন দলে দলে মানুষ আসছেন চিড়িয়াখানায়। তার বাবার নাম শের খান আর মায়ের নাম বাঘিরা। সে তার বাবা মায়ের চতুর্থ সন্তান। বার্নাউলের-এর দ্যা লেসনায়া স্কাযকা চিড়িয়ারখানাতে এখন প্রধান আকর্ষণ হয়ে দাঁড়িয়েছে ভিটাস। আট মাস বয়সী সেই ব্যাঘ্র শাবককে গর্জন করতে এখনও কেউ শোনেনি। তবে তার গলা থেকে মধুর সুর শুনেছেন অনেকেই।

আবার অনেকে এই সুরেলা ‘হালুম’ অপুষ্টি-যন্ত্রনার কিনা সে বিষয়েও কটাক্ষ করেছেন ইতিমধ‍্যেই। তবে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ সে কটাক্ষ নাস‍্যাৎ করে জানিয়েছেন, বাঘটি ছোট থেকেই ওরকম ডাকে। এখন সেই ডাক আগের থেকে অনেকটাই বেড়েছে। শাবকটির কণ্ঠ স্বরের গঠন সঠিক হয়নি। তাই তার গর্জনে সমস্যা হচ্ছে। আর মানুষ দেখলে খানিকটা আহ্লাদেই সে নিজের দিকে দর্শকদের আকর্ষিত করতে এভাবে আওয়াজ করে থাকে।