মুখ্যমন্ত্রীর কাছে মাথা হেঁট বিধায়কের, কান্নায় ভেঙে পড়লেন অভিনেতা কাঞ্চন

News Desk

June 24, 2021 | 3:36 AM
blog image

2 রা মে বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী হয়ে উত্তরপাড়া কেন্দ্র থেকে জিতে বিধায়ক হয়েছেন অভিনেতা কাঞ্চন মল্লিক (kanchan mullick)। কাঞ্চনের এই রাজনৈতিক সাফল্যে তাঁর সতীর্থ ও ঘনিষ্ঠ মহল যথেষ্ট আনন্দিত হলেও তাঁর স্ত্রী পিঙ্কি (pinky) কিন্তু কাঞ্চনের রাজনীতিতে আসা সমর্থন করেননি। এর কিছুদিন পর থেকেই কাঞ্চন ও শ্রীময়ী চট্টরাজ (sreemoyee chattaraj)-এর সম্পর্ক নিয়ে রটনা শুরু হলে পিঙ্কিও তাতে সামিল হন। গোটা ঘটনায় হতবাক কাঞ্চন জানিয়েছেন, দলের কাছে তাঁর মাথা হেঁট হয়ে গেছে।

আরও পড়ুন :   কালো গায়ের রঙ নিয়ে প্রতিদিন খোঁটা শুনতে হত আজকের নোয়া ওরফে শ্রুতিকে

কাঞ্চন বলেছেন, রাজনৈতিক কেরিয়ারের শুরুতেই তাঁকে ঘিরে এই ধরনের ঘটনার মধ্যে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের আভাস পাচ্ছেন তিনি। তাঁর একটাই কথা মনে হয়েছে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee)-কে তিনি কি উত্তর দেবেন তা তিনি জানেন না। পিঙ্কির জন্য আজ সকলের কাছে তিনি অসম্মানিত হয়েছেন। অপরদিকে পিঙ্কি কাঞ্চনের কাছে প্রতি মাসে সাড়ে তিন লক্ষ টাকা দাবি করেছেন। কিন্তু এছাড়া সবাইকে অবাক করে দিয়ে পিঙ্কি তাঁর ছেলে ওশো (osho)-র আয়ার ভাইয়ের জন্য চাকরির দাবি জানিয়েছেন। পিঙ্কির এই অদ্ভুত দাবিতে এবার সন্দেহের তীর তাঁর দিকে সহজেই ঘুরে যাচ্ছে।

আরও পড়ুন :   সুশান্তের দিদির বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ আনলেন রিয়া চক্রবর্তী, ফাঁস করলেন একাধিক তথ্য

শ্রীময়ী জানিয়েছেন, তিনি ব্যক্তি হিসাবে স্বতন্ত্র। বিবাহিত পুরুষের সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্কে জড়ানো তাঁর রুচির বিরুদ্ধে। কাঞ্চন এই ঘটনায় বিভ্রান্ত হয়ে জানিয়েছেন, কাঞ্চন মল্লিক সবাইকে হাসান। কিন্তু একা ঘরে তিনিই হাউহাউ করে কাঁদছেন। কাঞ্চন বললেন, পুরুষদেরও কান্না পায়। 19 শে জুন নিজের আপ্ত সহায়ক ও শ্রীময়ীর সঙ্গে পিঙ্কির সঙ্গে দেখা করেছেন কাঞ্চন। কাঞ্চন বলেছেন, নাহলে হয়ত পিঙ্কি তাঁর নামে বধূ নির্যাতনের মামলা করতেন।

আরও পড়ুন :   পরনের সাদা শাড়ি ছেড়ে টুকটুকে লাল ড্রেসে সোশ্যাল মিডিয়ায় উষ্ণতা ছড়ালেন ‘শ্রীময়ী’ ধারাবাহিকের জুন আন্টি

পিঙ্কি অভিযোগ করেছেন, ছেলের খোঁজখবর নেন না কাঞ্চন। কাঞ্চন সেই দাবি নস‍্যাৎ করে দিয়ে বলেছেন, সময় পেলেই ছেলের পছন্দের রান্না করে ছেলের সঙ্গে দেখা করেন তিনি। এমনকি গত লকডাউনের সময় 2 লক্ষ টাকা ও রেশন তিনি শ্বশুরবাড়িতে পাঠিয়েছেন এবং তার প্রমাণ রয়েছে। ক্ষুব্ধ কাঞ্চন নিজের ছেলের সমস্ত দায়িত্ব নিতে চেয়েছেন।