‘শোলে’ সিনেমায় চরম কষ্টের মধ্যে নেচেছিলেন, ইন্ডিয়ান আইডল মঞ্চে প্রকাশ্যে মুখ খুললেন হেমা মালিনী

News Desk

July 19, 2021 | 1:13 AM
blog image

‘ইন্ডিয়ান আইডল 12’ নিয়ে অমিত কুমার (Amit kumar)-এর তৈরি বিতর্কে একের পর এক সঙ্গীত জগতের তারকা মুখ খুলেছেন। জানা গেছে ‘ইন্ডিয়ান আইডল’-এর ব্যাকস্টেজের অনেক সিক্রেট। এর মধ্যেই ‘ইন্ডিয়ান আইডল’-এ বিশেষ অতিথি হয়ে এসেছিলেন হেমা মালিনী (Hema malini)। চরম কষ্ট সহ্য করেও হাসিমুখে নাচ করার ঘটনা শেয়ার করেছেন হেমা।

শুরুটা হয়েছিল ‘ইন্ডিয়ান আইডল’-এর প্রতিযোগিনী সায়লি কাম্বলে (sayali kamble)-এর গান দিয়ে। হেমা অভিনীত ‘শোলে’ ফিল্মের বিখ্যাত গান ‘যব তক হ্যায় জান’ গেয়েছিলেন সায়লী। গানের সাথে সায়লীর এক্সপ্রেশন অত্যন্ত পছন্দ হয়েছিল হেমার। গানের শেষে সায়লী জানান, তিনি হেমার একনিষ্ঠ ফ্যান। হেমার প্রায় প্রত্যেকটি ফিল্ম দেখেছেন সায়লী।

আরও পড়ুন :   প্রকাশ্য সমাবেশের মধ্য দিয়ে শুরু হল দিনহাটা ১নং ব্লকের সারা ভারত কৃষক সভা

এইসময় সায়লী হেমাকে জিজ্ঞাসা করেন, শুটিং করতে গিয়ে কখনও তাঁকে কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হয়েছিল কিনা। তখন হেমা শেয়ার করেন ‘শোলে’ ফিল্মের একটি ঘটনা। ‘শোলে’-তে হেমার বিখ্যাত ডান্স সিকোয়েন্স ‘যব তক হ্যায় জান’-এর শুটিংয়ের ঘটনা শেয়ার করেছেন হেমা। হেমা রমেশ সিপ্পি (Ramesh sippy)-কে অনুরোধ জানিয়েছিলেন, এই ডান্স সিকোয়েন্সটি নভেম্বর-ডিসেম্বর মাসে শুট করার জন্য। কারণ ওই সময় ব‍্যাঙ্গালোরের আবহাওয়া যথেষ্ট ভালো থাকে। গানটি খোলা আকাশের নিচে শুট করতে হয়েছিল বলে হেমা এই আর্জি জানিয়েছিলেন। কিন্তু রমেশ সিপ্পি হেমাকে জানান, তিনি মে মাসেই এই গান শুট করতে চান। কিন্তু মে মাসে অস্বাভাবিক গরম ছিল। হেমা জানিয়েছেন, সেই সময় ভ‍্যানিটি ভ‍্যান বা এয়ার কুলার কিছুই ছিল না। শুটিংয়ের ফাঁকে একটি ছাতার নিচে বলতেন হেমা এবং হাতে থাকত হাতপাখা।

আরও পড়ুন :   'দিল্লিতে বিজেপি হারার পিছনে রয়েছে হিংসাত্মক মন্তব্য', বিস্ফোরক মনোজ

কিন্তু রমেশ বলেছিলেন, সেই সময় প্রকৃত ফিল আসবে বলেই তিনি মে মাসে শুটিং করবেন। তার উপর ভাঙা কাঁচের উপর নাচ করতে বলা হয়েছিল হেমাকে। তখন হেমার মা তাঁকে আইডিয়া দিয়েছিলেন, স্কিন কালারের একটি সোল তৈরি করে মোজার মাধ্যমে তা পায়ে পরে নিলে কেউ বুঝতে পারবেন না যে পায়ে কিছু পরা রয়েছে। অথচ কোনো আঘাত লাগবে না। কিন্তু রমেশ সিপ্পি এই কথা জানতে পেরে হেমাকে ওই মোজা পরতে বারণ করেন। তখন হেমা রমেশকে অনুরোধ করেন, নাচের জায়গায় একটু জল ঢেলে দিতে, তাহলে জায়গাটি ঠান্ডা হয়ে যাবে এবং নাচতে সুবিধা হবে। হেমা জানিয়েছেন, গানটি শুট করতে দশ দিন লেগেছিল। হেমা নিজের সেরা পারফরম্যান্স করে নাচটি আইকনিক করে দিয়েছেন।

আরও পড়ুন :   ভোট না দিয়ে মরো না’! বাংলার মানুষের জন্য গান বাঁধলেন অভিজিৎ, তুমুল ভাইরাল ভিডিও