৬ মাস কোনো যোগাযোগ নেই, তবু শ্রাবন্তীকে নতুন পথচলার জন্য শুভেচ্ছা জানালেন রোশন

শহরের একটি নামী পাঁচতারা হোটেলে গতকাল সোমবার অর্থাৎ ১ মার্চ বিজেপির সভাতে গিয়ে গেরুয়া শিবিরে নিজের নামটা লিখিয়ে ফেললেন শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। এক সংবাদমাধ্যমের কাছ থেকে স্বামী রেশন নিজের স্ত্রীর এই খবর পাওয়ার পর জানিয়েছেন, “শ্রাবন্তী যে বিজেপি-তে যাবে, তার কোনও আভাস আমি পাইনি। আমাদের অবশ্য এখন আর কোনও কথা হয় না। ৬ মাস হয়ে গেল কেউ কারও খবর রাখি না।”

তিন তিনবার বিয়ে করার পরও সুখ শান্তি মিলেনি শ্রাবন্তীর জীবনে। বর্তমানে শ্রাবন্তীর তৃতীয় বিয়ে ভাঙতে চলেছে। রোশনের সঙ্গে কিছুদিন আগেই সাত পাকে বাঁধা পড়েছিলেন শ্রাবন্তী। বেশ সুখেই দিন কাটাছিলেন। কিন্তু সুখ সইলনা শ্রাবন্তীর জীবনে! দেড় বছরের মধ্যেই তাঁদের মধ্যে বিচ্ছেদের সুর বেজে ওঠে। এখন তাদের মধ্যে এমন পরিস্থিতি যে তাঁরা দুইজন দুইজনকে সহ্য করতেও পারেন না। আলাদা থাকা শুরু করেছেন। নিজেদের ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেল থেকেও একে অপরকে আনফলো করে দিয়েছেন। তাঁদের সুন্দর মুহূর্তের ছবিগুলোকেও ডিলিট করে দিয়েছেন এই জুটি। দুইজন দুইজনকে সোশ্যাল মিডিয়াতে এখন তীর্যকভাবে মন্তব্য করেন।

কয়েকদিন আগে শ্রাবন্তীর পুত্র ঝিনুক তাঁর সোশ্যাল মিডিয়াতে একটি স্টোরি শেয়ার করে। স্টোরি’তে ‘বডি বিল্ডারদের’ ঘিলুতে বুদ্ধির অভাব বলে কটাক্ষ করেছিলেন তিনি। অনুমান করা হয় ঝিনুক নাকি এই পোস্টটি রোশনকে উদ্দেশ্য করে লিখেছিল। এই নিয়ে বহু জল্পনা উঠলেও রোশন কিন্তু এই ব্যাপারে কোনো মুখ খোলেননি।

বিজেপিতে যোগদান করার সময় অভিনেত্রী শ্রাবন্তী দিলীপ ঘোষের হাত থেকে গেরুয়া শিবিরের পতাকাটি হাতে নিয়ে মাইকের সামনে আসেন। এই দৃশ্যটি দেখে অভিনেত্রীর স্বামী রোশন জানিয়েছেন “ওর নতুন পথচলা সফল হোক। দেশের জন্য কাজ করুক। আনন্দে থাকুক। বেস্ট অব লাক শ্রাবন্তী…” ফোন বন্ধ করে দিলেন রোশন।