লকডাউনের মাঝেই খুলছে ৩০০০ স্কুল! ঘোষণা কেন্দ্রর

school-student
স্কুল ছাত্রছাত্রী

করোনাকে থামাতে সারা দেশে লকডাউন চলছে। স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ও নিয়ম অনুযায়ী বন্ধ রয়েছে। তবে শনিবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক 3,000 স্কুল খোলার ছাড়পত্র জারি করে। সিবিএসই দশম ও দ্বাদশ শ্রেণীর বোর্ড পরীক্ষার খাতা দেখার জন্য এই ৩০০০ স্কুলকে মূল্যায়ন কেন্দ্র অর্থাত্‍ ইভালুয়েশন সেন্টার হিসেবে নির্দিষ্ট করা হয়েছে । শুধুমাত্র পরীক্ষার খাতা দেখার জন্যই স্কুল খোলার অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্র ।

একই দিনে কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল বলেছিলেন যে ৩,০০০ স্কুল রেজিস্ট্রার খোলার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। দেড় কোটিরও বেশি পরীক্ষার উত্তরপত্রগুলি ইতিমধ্যে দেখার জন্য শিক্ষকদের কাছে পৌঁছেছে। রমেশ পোখরিয়াল মনে করেন যে রেজিস্টার এবং মার্কশিট দেখার কাজটি আগামী ৫০ দিনের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে।

তবে কেন্দ্র পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছে যে এই সময়ে স্কুলে কোনও ক্লাস নেওয়া যাবে না। এছাড়া ৩০০০ টি স্কুলের পাশাপাশি সিবিএসই-এর ১৬টি আঞ্চলিক দফতরও খোলার অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্র । সিবিএসই বোর্ড পরীক্ষা করোনার পরিস্থিতিতে মাঝপথে স্থগিত করা হয়েছিল।তবে সম্পূর্ণ কোভিড ১৯ গাইডলাইন মেনে করতে হবে কাজ । করোনা পরিস্থিতিতে মাঝপথেই স্থগিত করে দেওয়া হয় সিবিএসই বোর্ড পরীক্ষা । ফলে সমস্যায় পড়েন লক্ষ লক্ষ পরীক্ষার্থী। আগামী ১ জুলাই থেকে ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে মূল ২৯টি বিষয়ের পরীক্ষা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক ।

অন্যদিকে, আইসিএসই বোর্ড প্রার্থীদের মূল্যায়ন পদ্ধতি পরিবর্তন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মূলত, পরীক্ষার্থীদের উত্তরপত্রগুলি শিক্ষকরা স্পট মূল্যায়নের জন্য ব্যবহার করতেন বা একাধিক শিক্ষক উত্তরপত্রে মূল্যায়ন করার জন্য নির্দিষ্ট জায়গায় বসে ছিলেন। আইসিএসই বোর্ড সম্প্রতি দেশজুড়ে আশঙ্কার মধ্যে সেই সিদ্ধান্তকে উল্টে দিয়েছে। সম্প্রতি বোর্ড নির্দেশ দিয়েছে যে আইসিএসই আইএসপি-র সমস্ত উত্তরপত্রগুলি ঘরে বসে শিক্ষকরা মূল্যায়ন করবেন। তারপরে শিক্ষকগণ মূল্যায়িত উত্তরপত্রগুলি অনলাইনে আপলোড করবেন।