৮টি বিশাল আকারের গ্রহাণু পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে

প্রথমে বলা হয়েছিল যে পাঁচটি গ্রহাণু পৃথিবীতে অবতরণ করতে চলেছিল। এবং এটি ভারতীয় সময় বুধবার এবং বৃহস্পতিবার সকালে দুপুরের মধ্যে হতে চলেছে। তবে নিউজ ১৮ হিন্দি প্রকাশিত সংবাদ অনুসারে, পাঁচটি নয়, আটটি আর্থ অবজেক্ট পৃথিবীর দিকে আসছে। নাসা গণমাধ্যম জানিয়েছে যে এক্সটারয়েড ২০২০ কেএন ৫ পৃথিবীতে ৫ জুন সকালে আঘাত হানবে, তার গতিবেগ প্রতি সেকেন্ডে ১২.৬৬ কিলোমিটার হবে, বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন। তবে গবেষকরা বলেছেন যে এই বিশাল গ্রহাণু পৃথিবীতে আঘাত করবে না।

তারা দেখেছেন যে পৃথিবী থেকে ৬১ লক্ষ কিলোমিটার দূরত্বে, এটি প্রকৃতই একটি ঝড়ের গতিতে বেরিয়ে আসবে। এটা তো সকালের কথা! সন্ধ্যাতেও বিপদ ঘাড়ের কাছে। প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, ৫ জুন সন্ধ্যায় আরেকটি গ্রহাণু পৃথিবীর দিকে আসছে। সন্ধ্যা ৫টা ৪১ মিনিটে আরও একটি বৃহত গ্রহাণু ২০২০ কেএ৬ পৃথিবীর থেকে ৪৪.১৩ লক্ষ কিমি দূর থেকে বেরিয়ে যাবে ৷ এর গতি প্রতি ঘন্টা ৪১,৬৫২ কিমি হবে। আরও একটি গ্রহাণু 6 জুন সকাল থেকে আসবে এটি পৃথিবীতে আঘাত হানার সম্ভাবনাও খুব কম। প্রকাশিত সংবাদ অনুসারে, এদিন সকাল ৮.৫০ মিনিটে এস্টেরেয়ড ২০০২ এনএন ৪ পৃথিবীর একেবারে কানের পাশ দিয়েই বেরিয়ে যাবে৷

বিজ্ঞানীরা বলছেন কপাল জোরে বাঁচবে এই ব্রহ্মান্ড। গ্রহাণু 2002 এনএন 4 এর গতি প্রতি ঘন্টা 40,140 কিলোমিটার। নাসা সূত্র মতে, গ্রহাণু 2002 এনএন 4 এর ব্যাস হবে ৫৭০ মিটার যা প্রায় ৫ টি ফুটবল মাঠের সমান। এগুলি সম্পর্কে চিন্তাভাবনা করে, জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা রাতের গ্রহাণুতে নজর রাখবেন। কারণ ৬ জুন প্রায় রাতে ১১.০৮ টায় গ্রহাণু ২০২০ কেকিউ ১ নির্গত হবে ৷ ৬ জুন বিকেল ৪.৩০ এর কাছাকাছি ২০২০ কেওএ ১ নামের এস্টেরেয়ড পৃথিবীর পাশ দিয়ে নির্গত হবে ৷ এর গতিবেগ ঘণ্টায় ২১,৯৩০ কিমি ৷ তবে এর মধ্যে কিছুটা হলেও স্বস্তির খবর।