অফবিট

১ বছর আগেই করোনার ভবিষ্যতবাণী করেছিল এই কিশোর, এখন জানালো কবে বিদায় নেবে

আমরা প্রায়ই শুনে থাকি যে, জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা খুব সহজে বলে দিতে পারেন আমাদের ভবিষ্যৎ। আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা জ্যোতিষ চর্চা করেন এমন মানুষদের অন্ধ বিশ্বাস করেন। এনাদের মধ্যে একজন হলেন অভিজ্ঞ আনন্দ নামে একজন কিশোর জ্যোতিষ।‘Severe Danger To The World From Nov 2019 To April 2020’ নামের সেই ভিডিওতে বিধ্বংসী করোনা ভাইরাসের ইঙ্গিত দিয়েছিল অভিজ্ঞ।

তখন এই ছোট্ট কিশোর জানিয়েছিল, গোটা বিশ্বে একটি মহামারী মানুষকে চরম বিপদে ফেলে দেবে। সে আরো বলেছিল যে,২০১৯ সালের নভেম্বর মাস থেকে ২০২০ সালের এপ্রিল মাস পর্যন্ত সময়টা মানবজাতির জন্য চূড়ান্ত ভয়ঙ্কর একটি খারাপ খবর আনতে চলেছে। তবে এই কিশোর একটি আশার খবরে জানিয়েছিল সকলকে। সে বলেছিল, এই মহামারী প্রকোপ কমে যাবে দুই হাজার কুড়ি সালের ৩১ শে মে এর মধ্যে। কার্যত এই ভবিষ্যদ্বাণী করার পর এই ছোট্ট কিশোরের কথা উঠে এসেছে খবরের শিরোনামে।

সম্প্রতি তাকে নিয়ে আরো একটি ভিডিও প্রকাশ এসেছে। যেখানে আনন্দ জানাচ্ছে, ৩১ মে নয়, ৩১ জুন এর আগে বিশ্ববাসী কোনরকম ভালো খবর শুনতে পাবে না। কিন্তু আস্তে আস্তে এই মারণ রোগের প্রকোপ অনেকটাই কমে যাবে।কিন্তু আমরা জুন মাসের শেষের মধ্যে সুখবর শুনতে পাবো আস্তে আস্তে।

এখানেই শেষ নয়, অভিজ্ঞ জানায়,২০২০ সালের ডিসেম্বরে পৃথিবীতে নেমে আসবে আরো একটি চরম বিপর্যয়, যা চলবে ২০২১ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত। তবে শুধুমাত্র ভবিষ্যদ্বাণী করে থেমে যায়নি অভিজ্ঞ। পাশাপাশি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য প্রত্যেককে তুলসী পাতা খাবার জন্য পরামর্শ দিয়েছে সে। সেইসঙ্গে হলুদ, জোয়ান আর আদা দিয়ে জলের ভাপ নেওয়ার কথা বলেছে সে।এই প্রক্রিয়া করলে ভাইরাস না কতটা কান দিয়ে শরীরে প্রবেশ করতে পারে না।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আমরা মহামারী র সঙ্গে অনেকটাই লড়াই করে আজ জিতেছি। তবে এই ছোট কিশোরের কথা যদি সত্যি হয়,তাহলে অদূর ভবিষ্যতে আমাদের জন্য অপেক্ষা করে রয়েছে আরো কিছু দুর্ভোগ।

Related Articles

Back to top button