প্রথম স্ত্রীকে ডিভোর্স দিয়ে অভিনেত্রী নুসরতের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন, বিস্ফোরক যশের প্রাক্তন স্ত্রী শ্বেতা

123

শ্বেতা সিংহ কালহানস(Shweta Singh kalhans) মুম্ব‌ইয়ের বাসিন্দা, তিনি একজন মহিলা সংবাদমাধ্যমের কর্মী। তবে এর থেকেও বড় তার একটি পরিচয় আছে, তিনি অভিনেতা যশ দাশগুপ্তের(Yash Dasgupta) প্রাক্তন স্ত্রী। গত কয়েক মাস ধরে নুসরত‌ (Nusrat Jahan) ও যশকে নিয়ে যে তুমুল জল্পনা শুরু হয়েছে, তার মধ্যে কোথাও শ্বেতাকে পাওয়া যায়নি। তিনি তার মত করে জীবন কাটাতেই অভ্যস্ত। সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে তিনি তার ও যশের সম্পর্ক নিয়ে কথা বলেছেন।

যশের প্রাক্তন স্ত্রী বলে তাকে কেউ চেনে না এই নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন,“কোনদিনও সামনে আসিনি তাই হয়তো।” কেন তিনি কখনো প্রকাশ্যে আসেননি এই প্রসঙ্গে জিজ্ঞেস করলে শ্বেতা বলেন,“ইন্ডাস্ট্রির আমি কেউ নয় আর যশের সাথে আমার তো বিচ্ছেদ হয়েই গিয়েছে। সামনে এসে কী করব বলুন?”

আরও পড়ুন:   সুন্দরী হতে গিয়ে, বিশেষজ্ঞের চিকিৎসায় বিপদে পড়লেন নায়িকা, নেট দুনিয়ায় প্রকাশ করলেন ক্ষোভ

প্রাক্তন স্ত্রী হিসেবে তিনি আড়ালে থাকলেও যশের সাথে নুসরত প্রকাশ্যে চলে এসেছেন, এই নিয়ে বলা হলে শ্বেতা বলেন,“আমি নুসরতকে দেখেছি, কিন্তু চিনি না। তাই কিছু বলতে চাই না।” মুম্বাইয়ে অভিনেতা যশের সাথে বিয়ে হয়েছিল শ্বেতার, তাদের দশ বছরের একটি ছেলেও আছে। বর্তমানে অবশ্য তাদের ডিভোর্স হয়ে গেছে।

আরও পড়ুন:   নিজের নামের দেওয়াল লিখন শেয়ার করলেন অভিনেত্রী সায়নী, প্রচার শুরু জোর কদমে

যশের প্রাক্তন বান্ধবী পুনম ঝা কে চেনেন কিনা এই নিয়ে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন,“ না মন্তব্য করার মতো চিনি না, তবে যশকে চিনি, ওকে জানি। যশের মেলামেশা করার একটি পদ্ধতি আছে। সেটাও জানি আমি। তবে আমার মনে হয় এ বার সময় হয়েছে! ভবিষ্যতে যশ কীভাবে নিজেকে প্রকাশ করবে, তার সিদ্ধান্ত এই বার ওর নিয়ে নেওয়া উচিত।”

যশকে এখন‌ও ভালোবাসেন কিনা, এই নিয়ে প্রশ্ন করা হলে অভিনেত্রী বলেন,“যশ আমার ছেলের বাবা। ওর সঙ্গে সেই সূত্র ধরে যেটুকু যোগাযোগ রাখতে হয় রাখি। আমাদের সন্তান পারস্পরিক হেফাজতের অধীনে। ডিভোর্সের সময় আমরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম আর ভালোবাসা? যশ যেদিন আমাদের পরিবার ছেড়ে চলে গিয়েছিলো, সেদিন থেকেই ওর জন্য আমার ভালোবাসা উধাও হয়ে গেছে।”

আরও পড়ুন:   যশের সঙ্গে বিয়ের একদিনের মধ্যেই মা হতে চলেছেন স্যান্ডি সাহা! ভাইরাল ছবি

শ্বেতার কথায়, অতীত নিয়ে তিনি অনেকদিন আগেই ভাবনা চিন্তা করা বন্ধ করে দিয়েছেন। তিনি এখন একার জীবন নিয়ে স্বপ্ন দেখেন আর স্বপ্নের মধ্যেই বেঁচে থাকেন।