বাচ্চা শিশুদের পূজায় উপহার দিলেন রিতাভরী, কুর্নিশ নেটিজেনদের

36

নিজের জীবনে শৈশব থেকেই একের পর এক প্রতিকূলতার মুখোমুখি হয়েছেন ঋতাভরী চক্রবর্তী (Ritabhari Chakraborty)। কখনও বাবা-মায়ের বিচ্ছেদ, কখনও ডিপ্রেশন। তবু বারবার ঘুরে দাঁড়িয়েছেন তিনি। এবার পুজোয় নিজের খুশি তিনি ভাগ করে নিলেন মূক-বধির শিশুদের সঙ্গে।

সম্প্রতি ঋতাভরী একটি মূক-বধির স্কুলে গিয়েছিলেন। সেখানে তিনি শিশুদের সঙ্গে অনেকখানি সময় কাটিয়েছেন। সবাই মিলে কেক কেটেছেন, খাবার খেয়েছেন। এই বছরের পুজো এইভাবে শুরু করে খুব খুশি ঋতাভরী। ইভেন্টের ছবিগুলি ইন্সটাগ্রামে শেয়ার করে তিনি জানিয়েছেন, তাঁরা সবাই মিলে পটারি ওয়ার্কশপ করেছেন। ইভেন্টের স্পনসর ছিল সুরক্ষা ডায়গনষ্টিক ও আমিনিয়া রেস্টুরেন্ট। ঋতাভরী তাঁদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন। তাঁর সঙ্গে এদিন উপস্থিত ছিলেন ‘জেআর ফাউন্ডেশন’-এর কর্ণধার রাহুল দাশগুপ্ত (Rahul Dasgupta) ও সাইকিয়াট্রিস্ট তথাগত চ্যাটার্জি (Tathagata Chatterjee)। হলুদ-লাল শাড়িতে এদিন ঋতাভরী হয়ে উঠেছিলেন অনন্যা।

আরও পড়ুন:   সুইমিং পুলে রোশনের সঙ্গে অন্তরঙ্গ অবস্থায় শ্রাবন্তী, ভাইরাল হল পুরোনো ছবি

গত বছর অগস্ট মাসে ঋতাভরীর অ্যাবসেস অপারেশন হয়েছিল। এরপর চলতি বছর মার্চ মাসে তাঁর ফিশচুলা অপারেশন হওয়ার পর চিকিৎসকের পরামর্শে ছয় মাসের জন্য বিশ্রাম নিয়েছিলেন ঋতাভরী। নাহলে রোগটা ফিরে আসার সম্ভাবনা ছিল। তবে বিশ্রাম নেওয়ার ফলে এখন অনেকটাই সুস্থ ঋতাভরী। এছাড়াও জিনগত ভাবে তিনি রেকারেন্ট ডিপ্রেশনের রোগী। স্কুলে পড়ার সময় থেকেই তাঁর ডিপ্রেশন দেখা দিয়েছিল। ওয়ার্কআউট করে সুস্থ ছিলেন ঋতাভরী। তাঁর শরীরে তৈরি হত উপযুক্ত সেরাটোনিন। কিন্তু অসুস্থতার সময় ঋতাভরীকে বন্ধ করতে হয়েছিল ওয়ার্কআউট। শারীরিক কষ্টের থেকেও বেশি মানসিক কষ্টে ভুগতে শুরু করেছিলেন ঋতাভরী। তবে আপাতত সেই ডিপ্রেশন কাটিয়ে উঠেছেন তিনি। নিজেকে সবসময়ই কাজে ব্যস্ত রাখার চেষ্টা করেন ঋতাভরী।

পুজোয় মুক্তি পেতে চলেছে ঋতাভরী অভিনীত ফিল্ম ‘এফআইআর’। এছাড়াও অনুরাগ কাশ‍্যপ (Anurag Kashyap)-এর প্রযোজনায় একটি হিন্দি ফিল্মে অভিনয় করছেন ঋতাভরী। ‘মায়া মৃগয়া’ নামে আরও একটি ফিল্মের শুটিং শুরু হতে চলেছে। এছাড়াও অংশুমান প্রত্যুষ (Angsuman Pratyush)-এর পরিচালনায় একটি রোম‍্যান্টিক ফিল্মে অভিনয় করছেন ঋতাভরী।