‘কাক কখনোই ময়ূর হয় না’, কমলে কামিনী দেবী সাজতেই ট্রোলের শিকার সকলের প্রিয় মিঠাই

74

আর কিছুদিন পরেই ঢাকে পড়বে কাঠি। রাত পেরোলেই বাঙালির ঘরে ঘরে বেজে উঠবে ‘আশ্বিনের শারদ প্রাতে’। দুদিন পরেই শুরু দেবীপক্ষ। দেবীপক্ষের শুরুতেই প্রত্যেকটি চ্যানেলের তরফ থেকে দেখানো হয় মহালায়া। ইতিমধ্যেই সব চ্যানেলের পক্ষ থেকেই মহালয়ার শর্ট ক্লিপ সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করা হয়েছে। প্রত্যেক বছরেই জি বাংলার পর্দায় থাকে নতুন নতুন চমক। এই বছরের মহালয়ায় দেবী কমলে কামিনী রূপে দেখা যাবে অভিনেত্রী সৌমিতৃষা (Soumitrisha Kundoo) অর্থাৎ সকলের প্রিয় মিঠাইকে (Mithai)।

ইতিমধ্যেই জি বাংলা (Zee Bangla) চ্যানেলের তরফ থেকে প্রকাশ করা হয়েছে দেবী দুর্গার কমলেকামিনী রূপ। প্রকাশ্যে এসেছে কমলেকামিনী দেবীর শর্ট নাচের ভিডিও। তবে সেই ভিডিওটি বড়ই অদ্ভুত। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে কখনও অভিনেত্রী সৌমীতৃষা কুন্ডু নাচ নাচতে দাঁড়িয়ে পড়ছেন, আবার কখনো ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে কথা বলে চলেছেন। এই ভিডিওটি জিবাংলার তরফ থেকে প্রকাশ্যে আনার পরেই অভিনেত্রীকে সামাজিক মাধ্যমে তীব্র কটাক্ষ শিকার হতে হয়েছে।

আরও পড়ুন:   ফরদিন খান থেকে উদয় চোপড়া, বয়সের ছাপে ফ্যাকাসে হয়েছে এই ৫ নায়কদের সৌন্দর্য!

অনেকেই কমেন্ট বক্সে লিখেছেন চ্যানেলের পক্ষ থেকে অবশ্যই উল্লেখ করে দেওয়া উচিত ছিল যে এটা প্র্যাকটিসের ভিডিও। ভিডিওতে নাচের স্টেপ ভুলে গিয়ে ও সুন্দরভাবে মেকআপ দিয়েছেন অভিনেত্রী। জি বাংলার অফিশিয়াল পেজে অভিনেত্রী সৌমিতৃষা কুন্ডু নিচে কমেন্ট করে লিখেছেন, ‘রিহার্সালের ভিডিওটা পোস্ট করে দিলে?’ অভিনেত্রীর এই মন্তব্যের নিচেই এক নেটিজেন অভিনেত্রীকে তীব্রভাবে কটাক্ষ করে লিখেছেন, ‘শোনো সবাইকে দেবীরূপে মানায় না। কাক কখনো ময়ূর হতে পারে না। তোমাকে দেবী কমলে কামিনী রূপে একদমই মানায় নি।’ সেই নেটিজেন এখানেই থামেননি। তার আরও বক্তব্য, ‘এর থেকে এই পথ যদি না শেষ হয় ধারাবাহিকের অন্বেষা হাজরাকে দেবী করলে বেশি ভালো লাগতো। জি বাংলা অফিশিয়াল তোমাকে দেবী করে খুব ভুল করেছে। দেখতেতো বাটির মতো ভালো করে নাচতেও পারে না সে হচ্ছে কমলে কামিনী। ন্যকাকে ন্যাকামোর করতেই মানায়। তোমার জন্য এবারে জি বাংলা অফিশিয়াল এর মহালয়া টিআরপি কমে যাবে।’

আরও পড়ুন:   পুরোনো জীবনে ফিরলেন ‘মিঠাই’-এর নিপা, সোশ্যাল মিডিয়ায় সুখবর শেয়ার করলেন অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা সাহা

দেবী কমলেকামিনী হলেন চতুর্ভূজা। পদ্ম ফুলের ওপর অধিষ্ঠাত্রী দেবী বর্ণনা রয়েছে পুরাণের চন্ডীমঙ্গলে। কথিত রয়েছে দেবী কমলে কামিনী প্রাণিজগতের এবং বনভূমির রক্ষা করি। আগেই প্রকাশে এসেছে মিঠাই ওরফে সৌমিত্রা কুন্ডুর দেবী কমলে কামিনী লুক।