এক নয় সাত ছেলের মা, বিধায়কের দায়িত্ব সামলে নিজের হাতে জন্মাষ্টমীর ভোগ রাঁধলেন অদিতি মুন্সি

25

অদিতি মুন্সি(Aditi Munshi), নামটা শুনলেই প্রথম মনে আসে মিষ্টি গলার একজন কীর্তনীয়া। ইনি যতটা সুন্দর কীর্তন করেন ঠিক ততোটাই রূপে লক্ষ্মী। রিয়েলিটি শো-এর মঞ্চ থেকে উত্থান হয় তার। তারপরেই ছবিতে প্লেব্যাকের সুযোগ। যারা গোত্র বাংলা সিনেমা দেখেছেন তারা অদিতিকে চাক্ষুষ করেছেন বোধহয়। হ্যাঁ, শিবপ্রসাদ-নন্দিতার ছবি ‘গোত্র’ তে প্লেব্যাক গান করেন অদিতি। এমনকি টেলিভিশনের পর্দায় অদিতির নাম হয়ে যায় ‘রাইকিশোরী’।

আরও পড়ুন:   দাদার হাত ধরে খুদের হাতেখড়ি, সরস্বতী পূজায় খোশমেজাজে সৌরভ ও ডোনা

২০১৮ সালে সাত পাকে বাঁধা পড়েন। এরপর একদিকে সংসার অন্যদিকে সঙ্গীত চর্চা। পাশাপাশি তৃণমূলে যোগদান করেন এবং বর্তমানে তিনি রাজারহাট গোপালপুর কেন্দ্রের নব নির্বাচিত বিধায়ক।

এইসবের মাঝেও মন দিয়ে কৃষ্ণ সেবা করেন। তিনি একটি ছেলের মা নন। তার বাড়িতে সাতটি গোপাল আছে। আর তাদের নিত্য সেবা দেন অদিতি। বিশেষ করে জন্মাষ্টমী উৎসবে প্রাণভরে উৎসবের আয়োজন করেন। শাশুড়ি মা এবং তিনি মিলে রান্নার সমস্ত আয়োজন করেন। এইবারও তার অন্যথা হয়নি। সকালে বিধায়ক হওয়ার কাজ সামলে ঠিক ভোগের ব্যাবস্থা করেছেন।

গোপালকে দুধ গঙ্গাজলে স্নান করিয়ে নতুন পোশাক পরিয়ে দিয়েছেন। ভোগের মধ্যে এই বছর বানিয়েছেন পোলাও, ফ্রায়েড রাইস, পাঁচ রকম ভাজা, লুচি, তরকারি, নাড়ু, তালের বড়া, মালপোয়া, ১২ রকমের মিষ্টি, ক্যাডবেরি, পায়েস । শুধুমাত্র জন্মাষ্টমীর দিন উৎসবে মেতে ওঠেন তিনি এমনটা নয়, পরের দিন করেন নন্দ উৎসব। এইবারও তিনি নন্দ উৎসব পালন করবেন এবং ১২ জন কিশোর বালককে খাওয়াবেন। সম্প্রতি এক সংবাদ মাধ্যমে অদিতি জানান,”গোপালের কাজ করতে হয় না। তিনি নিজেই নিজের ব্যবস্থা গুছিয়ে করে নেন”।