অনিল আম্বানি চীনের ব্যাঙ্কের প্রায় ১৫ হাজার কোটি টাকা ডুবিয়ে দিলেন!

ভারত ও চীনের মধ্যে বাণিজ্যে বড় ধরনের বৈষম্য রয়েছে। চীন প্রতি মুহূর্তে ভারতীয় বাজার থেকে মোটা অঙ্কের অর্থ তুলে নেয়। অন্যদিকে, চীনা বাজারে ভারত খুব বেশি লাভ করতে পারে না। এর কারণ হ’ল ভারতীয়রা বাজারে প্রচুর চাইনিজ পণ্য কিনে থাকে তবে চীনা জনগণ কেবল তাদের বাজারে চীনা পণ্য কিনে।

ফলস্বরূপ, ভারতীয়রা পরোক্ষভাবে তাদের নিজের পায়ে কুড়াল মারছে। তবে এসবের মধ্যে এখন একজন ভারতীয়র চর্চা খুব বেশি হচ্ছে যিনি চীনকে বড়ো ঝটকা দিয়েছেন। সেই ভারতীয়র নাম অনিল আম্বানি।

বাস্তবে, 2012 সালে, অনিল আম্বানি চীনের 3 টি ব্যাংক থেকে বড় লোণ নিয়েছিল। একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তিনি প্রায় ছয় হাজার কোটি টাকা লোন নিয়েছেন। বলা হচ্ছে সুদ নিয়ে সেই টাকা ১৫ হাজার কোটির ঘরে পৌঁছে যেতে পারে।

তবে অনিল আম্বানি বিপুল পরিমাণ অর্থ ফেরত দিতে অস্বীকার করেছেন। চীনা ব্যাংকগুলি ন্যায়বিচার পেতে আন্তর্জাতিক আদালতে মামলা করেছে। তবে বিষয়টি যেহেতু আন্তর্জাতিক সমস্যা, তাই চীন এ ক্ষেত্রে খুব বেশি দূর যেতে পারবে না। সব মিলিয়ে এখন অনিল আম্বানির কান্ড নিয়ে এখন বেশ চর্চা হতে শুরু হয়েছে।

কেউ কেউ কৌতুক করে বলেছেন যে অনিল আম্বানিই একমাত্র ভারতীয়, যিনি একাই চীনকে আঘাত করেছন। কেউ আবার হাস্যকর কথায় বলছেন, ভারত সরকারের উচিত অনিল আম্বানিকে একটি পুরষ্কার দিয়ে সম্মানিত করা।