করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু আরও এক ভারতীয়ের

করোনা ভাইরাসে ফের মৃত্যু এক ভারতীয়ের। যদিও এবার দেশে নয়, বিদেশের মাটিতে। ইরানের মাটিতে মৃত্যু হল এক ভারতীয়ের। ডাক্তাররা সমস্ত চেষ্টা চালিয়েছিলেন। কিন্তু শেষ রক্ষা হল না।

জানা গিয়েছে, লাদাখ থেকে গত কয়েকমাস আগে তীর্থে করতে গিয়েছিলেন অনেকে। লাদাখ থেকে তারা গিয়েছিলেন। ইরানের কৌম শহরে গিয়েছিল এই দলটি। কিন্তু ইরানে ইতিমধ্যে মহামারীর আকার নিয়েছে করোনা ভাইরাস। কয়েকশ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। ইরান থেকে গত কয়েক দফায় বেশ কয়েকজন ভারতীয়কে এয়ারলিফট করে ভারত। কিন্তু ২৫৪ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সে দেশে চিকিত্‍সাধীন বলে এর আগে জানিয়েছিল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।

[আরও পড়ুনঃঅবশেষে ফাঁসি হল নির্ভয়ার চার ধর্ষক-হত্যাকারীর]

সেই দলটির মধ্যে থাকা একজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। যিনি মারা গিয়েছেন, তিনি বয়স্ক বলে জানা গিয়েছে। তবে চিকিত্সার কারনে ওই বৃদ্ধ মারা যাননি বলেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে। মন্ত্রকের তরফে জানা গিয়েছে, বয়স অনেক হয়ে যাওয়ার কারনে শরীরে একেবারেই ইমিউনিটি পাওয়ার ছিল না। সেই কারনেই এই দুঃখজনক বলে জানানো হয়েছে। করোনায় আক্রান্ত ভারতীয় রোগীদের ইরানেই আপাতত চিকিত্সা হচ্ছে।

অন্যদিকে, করোনা ভাইরাসে চতুর্থ মৃত্যু হয়েছে পঞ্জাবে। ঠিক তারপরই সাধারণের জন্য যাতায়াত নিষিদ্ধ করল রাজ্য সরকার। শুক্রবার রাত থেকে এই নিয়ম লাগু করা হবে। পাশাপাশি নিষিদ্ধ হয়েছে ২০ জনের বেশি মানুষের জমায়েত। বিশ্ব মহামারি করোনার থাবায় অচল হচ্ছে দেশ।

যেকোনও রকমের জমায়েত, হোটেল, রেস্তুরেন্ট, ব্যাঙ্কোয়েট, বিয়েবাড়ি সব মিলিয়ে হোম ডেলিভারি সার্ভিস এবং টেক অ্যাওয়ে সার্ভিস ছাড়া সবই অচল হতে চলেছে। পাবলিক ট্রান্সপোর্ট থেকে টেম্পো, অটো রিকশা সার্ভিস বন্ধ হবে বলেই জানান গিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে।

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চতুর্থ মৃত্যু হল পঞ্জাবের এক ব্যক্তির মৃত্যু করোনায় হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। আগেই ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার রিপোর্ট আসায় জানা গিয়েছে যে ওই ব্যক্তির শরীরে করোনা ভাইরাস ছিল।

৭২ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি সদ্য বিদেশ থেকে ফিরেছেন। জার্মানি থেকে ইতালি হয়ে ভারতে ফিরেছিলেন তিনি। পঞ্জাবের নওয়ানশহরের একটি হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছে তাঁর। প্রচণ্ড বুকে ব্যাথার পর তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। তাঁর শরীর থেকে যে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল, তাতে মিলেছে করোনা ভাইরাস। এর আগে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে ভারতে। কর্ণাটকে, দিল্লিতে ও মহারাষ্ট্রে ওই তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।