করোনা আক্রান্ত রোগীর দেহে অ্যান্টিবডি মাত্র ৯০ দিন কাজ করে

Corona-Virus

নিজস্ব প্রতিবেদন: এতদিন বলা হয়েছিল, কোনো ব্যক্তি যদি করোনাক্রান্ত হয় এবং তারপর তিনি সুস্থ হয়ে এলে অর্থাৎ পরবর্তী কালে তার রিপোর্ট নেগেটিভ এলে, তার মধ্যে এক অ্যান্টিবডির সৃষ্টি হয় এবং ইমিউনিটি বা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। সেক্ষেত্রে তার করোনা প্রতিরোধী ক্ষমতাও বাড়ে।

কিন্তু লন্ডনের কিংস কলেজের এক গবেষণা বলছে একেবারে অন্য কথা। সোমবার প্রকাশিত এক গবেষণাপত্রে বলা হয়েছে, করোনা থেকে মুক্তি পেলে রোগীর মধ্যে ইমিউনিটি তৈরি হয় বটে কিন্ত তা কয়েক মাসের মধ্যে নষ্ট হয়ে যেতে পারে। ফলে সরকার রোগীদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার ওপরে ভর করে যেভাবে করোনা রুখে দেওয়ার চেষ্টা করছে তা ধাক্কা খেতে পারে, কিংস কলেজের গবেষকরা ৯০ জন করোনা রোগীকে পরীক্ষা করে দেখেছেন কীভাবে তাদের অ্যান্টিবড়ি সময়ের সঙ্গে বদলে যাচ্ছে।

ফলত ৯০দিনের পর তাদের থেকে অন্যদের শরীরে সংক্রমণ হতে পারে করোনার। গবেষকদের দাবি, করোনা রোগী ভাইরাসের বিরুদ্ধে অ্যান্টিবডি তৈরি করে প্রতিরোধ গড়ে তুললেও ৯০ দিন পর তা একেবারে উধাও হয়ে যাচ্ছে। ফলে তাদের ফের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থেকেই যাচ্ছে।ইনফ্লুয়েঞ্জার ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটতে পারে। ফলে দ্বিতীয়বার কেউ করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর যদি দেখা যায় তাঁর দেহে করোনা প্রতিরোধী অ্যান্টিবডি নেই তা হলে আশ্চর্য হওয়ার কিছু নেই।

লন্ডনের কিংস কলেজের এক গবেষণা বলে দিল একেবারে অন্য কথা। সোমবার প্রকাশিত এক গবেষণাপত্রে বলা হয়েছে, করোনা থেকে মুক্তি পেলে রোগীর মধ্যে ইমিউনিটি তৈরি হয় বটে কিন্ত তা কয়েক মাসের মধ্যে নষ্ট হয়ে যেতে পারে। আর এই নিয়েই শুরু হয়েছে চাঞ্চল্য।