চিন থেকে সরে যাচ্ছে অ্যাপেল, ভারতে ব্যবসা স্থানান্তরিত করার পরিকল্পনায়

Apple-Store
ছবিঃ গুগল

নিজস্ব প্রতিবেদন: ১৫০টি দেশকে সাহায্যে করেছে ভারত, তাই অন্যান্য দেশ ভারতের উন্নয়ন থেকে শিক্ষা নিতে পারে, এমনটাই বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। লাদাখ সংঘর্ষের জের কাটেনি এখনও, লাদাখ সংঘর্ষের পরেই ভারতে ব্যান করা হয় চিনের সমস্ত অ্যাপ।

আসছে রাখী পূর্ণিমা, আর তাতেও ভারতে আসবে না চিনের কোনো রাখী। আর তাতেও চিন এর ৪০০০ কোটি টাকা ক্ষতি হবে। আর এরপরেই করোনা ভাইরাস মহামারীর মধ্যেই চীন আরও একটি বড়সড় ঝটকা খেল। অ্যাপেল অ্যাসেম্বলি পার্টনার প্রেগাট্রন, ভারতে তাঁদের প্রথম কারখানা খুলতে চলেছে। সকলেরই জানা, প্রেগাট্রন বিশ্বের সবথেকে বড় মোবাইল কন্ট্রাক্ট ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি।

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আগেই বলেছিলেন ভারত কে আত্মনির্ভর হতে হবে। বড়ো বড়ো কোম্পানি গুলিও নাকি ভারত কে বেশি অঙ্কের টাকা বিনিয়োগ করেছে।  সেই মতোই জুন মাসে সরকার বিশ্বের শীর্ষ স্মার্টফোন নির্মাতাদের নজর কাড়তে ৬.৬ বিলিয়ন ডলারের পরিকল্পনার কথা ঘোষণা করেছিল।

জানা যাচ্ছে, অ্যাপেল কোম্পানি চীন কে ভরসা করতে পারছে না। আর সেই কারনেই অ্যাপেল অ্যাসেম্বলি পার্টনার প্রেগাট্রন, ভারতে তাঁদের প্রথম কারখানা খুলতে চলেছে।  ব্লুমবার্গের রিপোর্ট অনুযায়ী, পেগাট্রন ভারতে নতুন কোম্পানি বানাচ্ছে আর যারা এর আগে থেকে দক্ষিণ ভারতে কিছু আইফোন হ্যান্ডসেট বানাচ্ছে।

এর ফলে চীনের যে ভালোই ক্ষতি হল, তা বোঝাই যাচ্ছে। ব্লুমবার্গ ইন্টেলিজেন্সের কেন্টরম্যান অনুযায়ী, ফক্সকোন আর ইউস্ট্রন ভারতে তাঁদের ব্যবসা বাড়াতে চলেছে। অ্যাপেল নিজেদের প্রোডাকশন চীন থেকে শিফট করার কথা ভাবছে, কারন তার পিছনে আছে অতিমারী মহামারী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ।
অ্যাপেল কোম্পানি চীন কে ভরসা করতে পারছে না। আর সেই কারনেই অ্যাপেল অ্যাসেম্বলি পার্টনার প্রেগাট্রন, ভারতে তাঁদের প্রথম কারখানা খুলতে চলেছে।

ব্লুমবার্গের রিপোর্ট অনুযায়ী, পেগাট্রন ভারতে নতুন কোম্পানি বানাচ্ছে আর যারা এর আগে থেকে দক্ষিণ ভারতে কিছু আইফোন হ্যান্ডসেট বানাচ্ছে। সেই মতোই জুন মাসে সরকার বিশ্বের শীর্ষ স্মার্টফোন নির্মাতাদের নজর কাড়তে ৬.৬ বিলিয়ন ডলারের পরিকল্পনার কথা ঘোষণা করেছিল।