গুনগুন না ফেরায় বাড়ি ছাড়ছেন পটকা, তবে কি ভেঙ্গে যাবে মুখার্জী পরিবার!

135

খড়কুটো পরিবারে বৌদিভাই আর গুনগুন এর মধ্যে চরম লড়াই তৈরি হয়েছিল পুচুসোনা কে নিয়ে। এবার সুখের সংসারে ভাঙনের খবর পাওয়া গেলো এই পরিবারে।গুনগুন তার বাপেরবাড়ি ছেড়ে শ্বশুরবাড়ি না ফিরলে তাদের পরিবার আর টিকবে না,তাই স্ত্রীকে বাড়ি ফেরানোর আর্জি নিয়ে গুনগুনের কলেজে গেলো সৌজন্য।

স্টার জলসার এক যৌথ পরিবার খড়কুটো। সুখ দুঃখ সব মিলেমিশে একাকার হয়েছিল এই পরিবারে। বাড়ির ছেলে সৌজন্যের বিয়ের পর প্রানবন্ত গুনগুন বাড়িটাকে মাথায় করে রেখেছিল। বাড়িতে কোনো ভুল বোঝাবুঝি হলেও তার চটজলদি সমস্যা বার করার ক্ষমতা ছিল গুমগুনের। সেই গুনগুন চলে গেছে বাপের বাড়ি।

পরিবারের মিষ্টি বৌদির সদ্যোজাত কন্যাকে চোখে হারায় গুনগুন। জন্মের পর থেকেই তার উপর এক আশ্চর্য অধিকারবোধ তৈরি হয় গুনগুনের। কিন্তু মিষ্টি যে তার মা তাই কোনো ক্রমেই সে অন্যের হাতে দেবে না মেয়েকে। যা নিয়ে একপ্রস্থ ঝগড়া চলে বাড়িতে। শেষে পুচুসোনা পড়ে গিয়ে মাথায় চোট পায়। এই দুর্ঘটনার জন্য গুনগুনের বাড়াবাড়ি কেই দায়ী করে বাড়ির লোক। অভিমানে রাগে বাড়ি ছেড়ে চলে যায় গুনগুন।

গুনগুন মনস্থির করে আর কোনোদিন সে ফিরবে না ওই বাড়িতে। কিন্তু ঘরের লক্ষ্মী বাড়িতে না ফেরায় বাড়ির সদস্যরা এক প্রকার অনাস্থা ডাকে। বাড়ির বড়ো জ্যাঠা ও জেঠিমা বৃদ্ধাশ্রমে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। পটকা ট্রান্সফার নিয়ে চলে যেতে চায়। সব মিলিয়ে এক টালমাটাল পরিস্থিতি মুখার্জী বাড়িতে। এমতাবস্থায় বাড়ির সকলে ফন্দি এটে বউ ডাকাতি অভিযান করলেও তা অসফল হয়। সৌজন্য গুনগুনের কলেজে গিয়ে তাকে বোঝানোর চেষ্টা করে। এমনকি মিষ্টিও মিনতি করে গুনগুন কে বাড়িতে ফেরার জন্য। কিন্তু সিদ্ধান্তে অনড় গুনগুন।

দর্শক অবশ্য গুণগুণের এই জেদের পিছনে যুক্তি খাড়া করেছে,তাদের দাবি অপমানের পরেও কেন ওই বাড়িতে ফিরবে গুনগুন। আবার কেউ কেউ বলছেন,বাড়ির সকলে তাদের ভুল বুঝতে পেরে ক্ষমা চাওয়ার পরেও গুনগুনের এই জেদ মানায় না।

আরও পড়ুন:   দেখানো হচ্ছে ভুল তথ্য! বিস্ফোরক অভিযোগ উঠলো ‘করুণাময়ী রানী রাসমণি’-এর বিরুদ্ধে