Homeলাইফ স্টাইলভাতের সঙ্গে খাওয়ার জন্য নিরামিষ আলু বেগুন পটল, শিখে নিন রেসিপি

ভাতের সঙ্গে খাওয়ার জন্য নিরামিষ আলু বেগুন পটল, শিখে নিন রেসিপি

বেগুনের মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টিগুণ। প্রতিদিন যদি নিয়মিত বেগুন খাওয়া যায় তাহলে শরীরের অনেক সমস্যা থেকে আপনি রেহাই পেতে পারেন। যাদের লিভারের সমস্যা আছে তারা বেগুন খেতে পারেন। যাদের ঘুম হয় না সহজে তারাও বেগুন খেতে পারেন। বেগুনের তরকারি, বেগুন পোড়া, বেগুনের সুপের যদি একটু করে হিং দেওয়া যায়, তাহলে গ্যাস, অম্বলের সমস্যা থেকে আপনি রক্ষা পাবেন। যে সমস্ত মহিলাদের ঋতুস্রাব ঠিকঠাক সময় হয়না তারা নিয়মিত বেগুন খেতে পারেন। কিডনিতে পাথর জমে থাকলে স্বাভাবিক ভাবে কিডনি থেকে সেই পাথর থেকে বার করতে সাহায্য করে বেগুন।

পটলের মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ এবং সি এবং রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। যা আপনার ত্বককে অনেক বেশি সুস্থ রাখতে সাহায্য করে পটলের মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার যা খাদ্য হজম করতে সাহায্য করে। পটলের বীজ কোষ্ঠকাঠিন্য সারাতে সাহায্য করবে। যারা ডায়েট করছেন তারা অবশ্যই তাদের ডায়েটে পটলকে রাখুন। পটল ক্যালোরি কম থাকে তাই ওজন কমাতে সাহায্য করে। পটল রক্তকে পরিশোধিত করে তাই ত্বকের যত্নে অবশ্যই পটলকে রাখুন।

এত উপকারী উপাদান যখন রয়েছে বেগুন এবং পটলে। তখন জেনেনিন বেগুন এবং পটল দিয়ে আপনি কি করে সহজে এই নিরামিষ রান্নাকে করে ফেলতে পারবেন।

উপকরণ -»
২ টো বড় আকারের বেগুন
৫০০ গ্রাম পটল
৫ টি বড় আকারের আলু
ক্যাপ্সিকাম এক টা
আদা বাটা ৩ টেবিল চামচ
টমেটো বাটা ২ টি
জিরে গুঁড়ো ১ চা
ধনে গুঁড়ো ১ চা চামচ
লঙ্কা গুঁড়ো স্বাদমতো
হলুদ গুঁড়ো ১ চা চামচ
আমচুর পাউডার ১ চা চামচ
চিরে রাখা কাঁচালঙ্কা স্বাদমতো
ধনেপাতা কুচি ১ কাপ
গরম মশলার গুঁড়া সামান্য
সরষের তেল ১ কাপ
গোটা জিরে, শুকনো লংকা, দারচিনি, এলাচ, লবঙ্গ

প্রণালী -»
বেগুন গুলিকে ভালো করে কেটে নিতে হবে পটলের খোসা ছাড়িয়ে ভালো করে নুন, হলুদ মাখিয়ে রাখতে হবে। আলুর খোসা ছাড়িয়ে টুকরো টুকরো করে কেটে নিতে হবে। কড়াইতে সরষের তেল দিয়ে পটল গুলি হালকা ভেজে তুলে রাখতে হবে। এরপরে আলু হালকা ভেজে তুলে রাখতে হবে তারপর গোটা জিরে, শুকনো লঙ্কা, তেজপাতা, গোলমরিচ, লবঙ্গ, এলাচ, দারচিনি ফোড়ন দিতে হবে। এর মধ্যে আদা বাটা, টমেটো বাটা দিয়ে দিতে হবে। ক্যাপসিকাম বাটা এবং সমস্ত গুঁড়ো মশলা দিয়ে ভালো করে কষাতে হবে। কষানো হয়ে গেলে আলু পটল এবং বেগুন দিয়ে দিতে হবে সামান্য উষ্ণ গরম জল দিয়ে ঢাকা দিয়ে রাখতে হবে, ঢাকা খুলে খুন্তি দিয়ে নাড়িয়ে ওপরে ধনেপাতা এবং চিরে রাখা কাঁচালঙ্কা ও গরম মশলার গুঁড়া ছড়িয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন নিরামিষ আলু বেগুন পটলের রসা।

MOST POPULAR ARTICLES