বন্ধ সরকারি কর্মচারীদের বায়োমেট্রিক হাজিরা

করোনা আতঙ্কে সাময়িক কিছু সময়ের জন্য ফের ত্রিপুরায় সরকারি অফিসগুলিতে হাজিরা খাতা ফিরে এসেছে। কারণ, বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে অফিসে হাজিরা দিতে গিয়ে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে। তাই, ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত আধার ভিত্তিক বায়োমেট্রিক হাজিরা বন্ধ রাখার নির্দেশ জারি করেছে ত্রিপুরা সরকারের সাধারণ প্রশাসন।

বুধবার ত্রিপুরা সরকারের সাধারণ প্রশাসন এক বিজ্ঞপ্তি জারি করে বলেছে, সারা বিশ্বে করোনা ভাইরাস মহামারি আকার ধারণ করেছে। ভারতেও এই ভাইরাস ক্রমশ ছাড়িয়ে পড়ছে। এই ভাইরাস মূলত আক্রান্ত কারোর সংস্পর্শে গেলেই ছড়িয়ে পড়ছে। সেক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে ভাইরাস লেগে থাকা কোনও বস্তু স্পর্শ করলেও তা ছড়িয়ে পড়ছে।

[আরও পড়ুনঃমহিলার উপর প্রথম টিকা, আশার আলো জাগছে বিশ্বে]

তাই, সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে বার বার ভালো করে হাত ধোয়া খুবই জরুরি। তাছাড়া, একাধিক মানুষের হাতের স্পর্শ হয় এমন বস্তু এড়িয়ে চলা জরুরি বলেই দাবি করা হচ্ছে। তাই, সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে সমস্ত সরকারি অফিসে আধার ভিত্তিক বায়োমেট্রিক হাজিরা পদ্ধতি আগামী ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ জারি করা হয়েছে। তার বদলে সমস্ত সরকারি কর্মচারীদের নিজ নিজ অফিসে হাজিরা খাতায় প্রতিদিন হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ জারি করা হয়েছে।

ভারতে ক্রমেই বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। ভারতে ইতিমধ্যে ১৫১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। মহারাষ্ট্রে সব থেকে বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে জা‌না গিয়েছে। ভারতে আক্রান্তদের মধ্যে ২৫ জন বিদেশি রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। বুধবার দেশের বিভি‌ন্ন প্রান্ত থেকে ১০ জনের শরীরে নতুন করে করোনা ভাইরাসের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

চিনের উহানে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেলেও। বর্তমানে বিশ্বের প্রায় ১৪৬টা দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের খবর পাওয়া গিয়েছে। ইতালিতে করোনা ভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা দুই হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে। ইরানে করোনা ভাইরাসে এক হাজারের বেশি মা‌নুষ মারা গিয়েছেন বলে জা‌না গিয়েছে। বিশ্বে আট হাজারের বেশি মানুষের করোনা ভাইরাসে মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা দুই লক্ষ ছাড়িয়ে গিয়েছে বলে জানা গিয়েছে।