চাপে পড়েই কি এই সিদ্ধান্ত? আলোচনায় বসার ডাক দিলো চীন

পূর্ব লাদাখের গ্যালওয়ান উপত্যকায় মুখোমুখি হওয়া ভারত ও চীনের সেনাবাহিনীর মধ্যে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার মধ্যে আজ দু’দেশ আবার মিলিত হবে। বৈঠকে দুই দেশের কর্মকর্তারা সীমান্তে উত্তেজনা হ্রাস করার উপায় এবং গ্যালভান উপত্যকায় কী ঘটেছিল তা নিয়ে আলোচনা করবেন। গতকাল, প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং জল, স্থল ও বিমান বাহিনীকে চীনের সাহসের প্রতিক্রিয়া জানাতে স্বাধীনতা দিয়েছিলেন। এবং তারপরে দুই দেশের মধ্যে সেনা কর্মকর্তাদের একটি বৈঠক হতে চলেছে।

প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে, ভারত ও চীনের সাথে বর্তমান উত্তেজনা কমাতে দু’পক্ষ আজ আবারও বৈঠক করবে। বৈঠকটি ডেকেছিল চীন। শোনা যাচ্ছে যে চীনা সীমান্তের মোল্ডিতে এই বৈঠক হবে। বৈঠকে দুই দেশের সামরিক আধিকারিকরা সীমান্তে উত্তেজনা লাঘব করার বিষয়ে কথা বলবেন।

এর পাশাপাশি গ্যালওয়ান উপত্যকার সাম্প্রতিক ঘটনা নিয়েও আলোচনা হবে। জুনের পর থেকে দুই দেশের সামরিক কর্মকর্তাদের মধ্যে এটি দ্বিতীয় বৈঠক।

অন্যদিকে, আজ ভারত ও চীনের সীমান্ত ব্যবস্থাপনায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক একটি বড় বৈঠক করতে চলেছে।  এক সপ্তাহের মধ্যে সীমান্ত পরিচালনার বিষয়ে দ্বিতীয় বৈঠক। বর্ডার ম্যানেজমেন্টের নেতৃত্বে এই বৈঠকে বর্ডার রোড অর্গানাইজেশন (বিআরও), আইটিবিপি, সিপিডব্লিউডি এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের কর্মকর্তারা অংশ নেবেন।

বৈঠকে সীমান্তে রাস্তা নির্মাণের দ্রুত কাজ শেষ করার কৌশল নিয়ে আলোচনা করা হবে। আইসিবিআর দ্বিতীয় পর্যায় (ইন্দো চায়না সীমান্ত রোড) এ 32 টি রাস্তা নির্মিত হবে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক সূত্রে জানা গেছে, সকল সংস্থার সহায়তায় সড়কটি নির্মাণ কাজ ত্বরান্বিত করা হবে।