রাজনৈতিক মতাদর্শ ভুলে করোনা মোকাবিলায় কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়ছে সিপিএম-আরএসএস

দেশে করোনা সংক্রমণ উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে। রাজনৈতিক মতাদর্শ ভুলে একযোগে এই অতিমারিতে মানুষের পাশে দাঁড়াতে বার্তা দিয়েছেন শীর্ষ নেতৃত্বরাও। কেরলের কান্নুর জেলায় দেখা গেল রাজনৈতিক তরজা ভুলে মানুষের পাশে দাঁড়ালেন আরএসএস ও সিপিএম। সঙ্গে যোগ দিয়েছে কংগ্রেস সমর্থকরাও। গত তিন দশকে প্রায় 200 জন মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন আরএসএস-সিপিএম সংঘর্ষে। লকডাউনে সাধারণ মানুষ যাতে অনাহারে না থাকে তার জন্যই সম্মিলিতভাবে এই তিন সংগঠনের সদস্যরা কমিউনিটি কিচেন চালাচ্ছেন।

কেরলের কান্নুরের থালাসেরি নামে উপকূলবর্তী শহর আরএসএস-সিপিএম-কংগ্রেসের মধ্যে ঐক্যের চিত্র সবচেয়ে বেশি ধরা পড়েছে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নের বাসস্থান এই থালাসেরিতে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ভি মুরলিধরন এবং সিপিএম সম্পাদক কোদিয়ারি বালাকৃষ্ণন এই অঞ্চলেই থাকেন। পূর্বে আরএসএস ও সিপিএম মধ্যে সংঘর্ষ প্রায় চলত। এমনকি যে অঞলে নিজেদের আধিপত্য বেশি সেখানে বিপরীত রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বীদের পর্যন্ত ঢুকতে দেওয়া হতো না। এখন এই মহামারীতে রাজনৈতিক মতাদর্শ ভুলে, সংঘর্ষ ভুলে দুঃস্থ মানুষদের সাহায্যে পাশে দাঁড়িয়েছেন এই তিন রাজনৈতিক সংগঠন।

থালাসেরির বিধায়ক শামসের বলেছিলেন, ‘এটা রাজনীতি করার সময় নয়। আমাদের মুখ্যমন্ত্রী প্রকাশ্যে সবাইকে একসঙ্গে নিয়ে এই কমিউনিটি কিচেন চালানোর পরামর্শ দিয়েছেন। এখন আমাদের একমাত্র লক্ষ্য যারা অনাহারে দিনযাপন করছে তাদেরকে খাবার দেওয়া। পতাকার রং দেখার সময় এখন নয়।’ স্থানীয় বিজেপি নেতা এমপি সুমেস বলেন, ‘এখন দরিদ্র মানুষদের হাতে খাবার দেওয়া আমাদের জাতীয় কর্মসূচি।’