বিনোদন

মাদককান্ডে জোরদার ফেঁসে গেছেন, তাই মাদক মামলা থেকে বাঁচতে বিশেষ ফন্দি আঁটলেন দীপিকা

অভিনেত্রী রকুলপ্রীত, সারা, দীপিকা ও শ্রদ্ধা এনসিবির জেরার মুখে পড়েন সুশান্ত মাদক মামলায় তাদের নাম ওঠার ফলে। তবে এখনো সম্পূর্ণ প্রকাশিত হয়নি যে কোন কোন অভিনেত্রীকে ঠিক কি কি প্রশ্ন করেছেন এনসিবির অধিকারিকরা, তবে প্রকাশিত হয়েছে বেশ কিছু বিষয়। গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য উঠে আসে দীপিকার ড্রাগস ল্যাঙ্গুয়েজ কোড নিয়ে।

দীপিকাকে এনসিবি জেরা করেন মূলত করিশমার সঙ্গে হওয়ার চ্যাট নিয়ে। হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটটিতেই দীপিকা ‘মাল’ শব্দটি উল্লেখ করে, এবং এনসিবি কে জানায় সিগারেটকে তিনি ‘মাল’ বলে সম্বোধন করেছেন। দীপিকা ডুবস, হ্যাশ, বিড গুলিকে সিগারেটের ব্র্যান্ড বলেছেন এমনটাই জানা যায়। অভিনেত্রীর ড্রাগ নেওয়ার অভিযোগকে নস্যাৎ করে এনসিবির জেরায়‌।

অন্যদিকে ‘মাল’ বা ‘হ্যাশ’ বলতে হুবহু দীপিকার মতো বয়ান দেয় দীপিকার ম্যানেজার করিশমা। করিশমাকে কাগজ কলম দিয়ে তার সামনে একটা মোটা ও একটা সরু সিগারেট রাখেন এনসিবির লোকেরা কোডটির সত্যতা যাচাইয়ের জন্য। তিনি মোটা সিগারেটকে ‘বিড’ এবং পাতলা সিগারেটকে ‘হ্যাশ’ বলেন। দুজনেই এই একই কোড লেখেন।

দু’জনকেই একেবারে প্রস্তুত করে পাঠানো হয়েছিল এনসিবি এমনটাই মনে করছে কোড দুটি মিলে যাওয়ায়। এনসিবির মন্তব্য দুজনেই একেবারে হোমওয়ার্ক করে এসেছিলেন কোড দুটির সম্পর্কে।

Related Articles

Back to top button