১৯ শে পা দিলেন ‘রাণীমা’ দিতিপ্রিয়া, পরিবারের সাথে কেক কেটে সেলিব্রেট করলেন জন্মদিন

41

দেখতে দেখতে যৌবনের শেষ পর্যায়ে এসে পৌঁছালেন রানী মা। এদিন হলুদ ঝলমলে আলোয় সাজিয়েছিলেন তার ঘর। টেবিলের উপর রাখা ছিল একটি নয়, দুটি নয়, একেবারে চার চারটি কেক। পরিবারের সাথেই তার বিশেষ দিন কাটালেন রানী মা। এই বিশেষ দিনের সমস্ত ছবি এবং ভিডিও নিজেই অনুরাগীদের সাথে ভাগ করে নিলেন সামাজিক মাধ্যমের মধ্য দিয়ে।

১৯ বছর বয়স হল দিতিপ্রিয়া রায়ের (Ditipriya Roy)। প্রথমে ম্যাজিক কান্ডেল গুলোর নিভিয়ে একটা একটা করে কেক কাটলেন রাণীমা। সেই কেক নিজে হাতে করে খাইয়েও দিলেন সবাইকে। খাইয়ে দেওয়ার পরেই নিজের হাতে ক্যামেরা তুলে নিয়ে একে একে পরিবারের সকলের সাথে পরিচয় করিয়ে দিলেন তিনি। গোটা অনুষ্ঠানে হাজির ছিল তার ছোট্ট আদরের পোষ্য পপকন।

আগের মাসে শেষ হয়েছে রাণীমা দিতিপ্রিয়ার দীর্ঘ চার বছরের পথচলা। রানী রাসমণি (Rani Rashmoni) ধারাবাহিকে রাণীমার জীবন অবসান ঘটায় বরাবরের মতো সেই শুটিং সেট ছেড়ে বেরিয়ে আসতে হয়েছে তাকে। তারপর পর্দার সামনে চরিত্রের লুক ভাঙতে নানারকম অবতারে ধরা দিয়েছেন তিনি। কখনো অভিযাত্রিক সিনেমার শর্মিলা ঠাকুরের বেশে আবার কখনো স্লিভলস টপে বোল্ড লুকে দেখা গিয়েছে তাকে। সম্প্রতি এক সংবাদমাধ্যমের সাক্ষাৎকারে রাণীমা বলেছেন,’আমার ছোটপর্দা থেকে একটু বিরতি নেওয়ার ইচ্ছা রয়েছে। রানিমা-র চরিত্রের অভ্যেসটা কাটাতে একটু সময় লাগবে। তবে ছবিতে কাজ করব। অচেনা উত্তম ছবির শ্যুটিং চালু হয়েও কোভিড পরিস্থিতির জন্য আপাতত বন্ধ রয়েছে। পাভেলের সঙ্গে একটা নতুন ছবিতে কাজ করব। মায়ামৃগয়া ছবিতেও কাজ করব। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হোক। বব বিশ্বাস আর অভিযাত্রীকের মুক্তিও তো আটকে রয়েছে।’

এছাড়াও রাণীমাকে দেখা যাবে ‘তানসেনের তানপুরার’ তৃতীয় পর্বে। তানসেনের তানপুরার প্রথম ও দ্বিতীয় পর্ব দর্শকদের প্রবল ভালোবাসা পেয়ে তৃতীয় পর্বের দিকে এগোচ্ছে। সিরিজের প্রধান চরিত্র আলাপ অর্থাৎ বিক্রম চট্টোপাধ্যায় এবং শ্রুতির সাথে দিতিপ্রিয়াও সন্ধান চালাবেন সেই তানপুরা। ইতিমধ্যেই প্রকাশ্যে এসেছে দিতিপ্রিয়ার সেই ওয়েব সিরিজের প্রথম লুক ও। ওয়েবসাইট পোশাকের সাথে সাথে লম্বা স্কার্ট এবং সাদা টপে ঝলমাল করতে দেখা যাচ্ছে রাণীমাকে।

আরও পড়ুন:   লাল পাড়ে সাদা শাড়িতে তুমুল নাচ ‘সারেগামাপা’ বিজয়ী অঙ্কিতার, নেটদুনিয়ায় প্রশংসার ঝড়