বিনোদনঅফবিট

অহংকার পতনের কারন, গানের জগৎ থেকে রাতারাতি হারিয়ে গেলো লতাকন্ঠী রানু মণ্ডল

পেশায় ছিলেন ভবঘুরে। রানাঘাট স্টেশন ই তার দিনের বেশিরভাগ সময় কাটতো। কখনো কারো কাছ থেকে ভিক্ষা করে কখনো খাবার চেয়ে খেয়ে পেট ভরতে হঠাৎ করে নামডাক হওয়া শিল্পী রানু মন্ডল। একদিন তিনি দেশবাসীর কাছে জনপ্রিয় হলেন বিদ্যুৎ এর আলোর মত। ঠিক তেমনিভাবেই হঠাৎ করেই তিনি আবার নিভে গেলেন। রানাঘাটের ভবঘুরে হতদরিদ্র পরিবারের মহিলা রানু মন্ডলের অসাধারণ কণ্ঠ কি দেশবাসীর কাছে তুলে ধরেন রানাঘাটের এক যুবক অতীন্দ্র চক্রবর্তী।

লতা মঙ্গেশকরের এক গান্ধী নেটদুনিয়ায় সাড়া ফেলে দিয়েছিলেন এই রানু মন্ডল। নেট বাসীরা তাকে লতা কন্ঠে বলেও সম্বোধন করেছিল। হিমেশ রেশমিয়া তাকে নিজের অ্যালবামের গান গাওয়ান। তেরি মেরি কাহানি গানটি বেশ হিট হয়েছিল। এই গানটি তে রানু মন্ডলের সাথে সংগতে ছিলেন হিমেশ রেশমিয়া।

কিন্তু এমন কি ঘটলো যে এই রানু মন্ডল হঠাৎ করেই গানের জগত থেকে সরে গেল? এক সূত্র মারফত খবর পাওয়া যায় রানু মন্ডলের নামডাক হওয়ার পর তার ব্যবহারে উঠে আসে অহংকার এবং দাম্ভিকতার প্রকাশ। তারি অহংকার এর জন্য তার ভক্তরা বিরক্ত হয়ে ছিল। একবার কাতারের এক শপিং মল ইন শপিং করতে চান রানু মন্ডল সাথে ছিল হিমেশ রেশমিয়া। সেখানে রানু মন্ডল এর এক ভক্ত তার সাথে সেলফি তুলতে চায়। তখন রানু মন্ডল ক্ষুব্ধ হয়ে যান। তার এই সব অহংকার এর জন্যই রানু মন্ডলের ভক্তরা বিরক্তি হয়েছে রানু মন্ডলের উপর। একটি চ্যানেলে বড় বড় শিল্পীদের সঙ্গে পারফর্ম করার কথা ছিল রানু মন্ডলের, সেই অনুষ্ঠানে অতিথি হয়ে আসার ঠিক ছিল অমিতাভ বচ্চনের। কিন্তু কাতারে রানু মন্ডল এর ওই ব্যাপারে এই চ্যানেল থেকে অনুষ্ঠানে পারফর্ম করার জন্য রানু মন্ডল কে বাতিল করে দেওয়া হয়।

যে রানু মন্ডল ভক্তদের ভালোবাসায় জোরেই রিয়েলিটি শো থেকে হিমেশ রেশমিয়ার সাথে গান গাওয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন, এক সময় তিনি সেলিব্রিটি হয়ে সেই ভক্তদেরই ভুলে গেলেন। নিজের এই ব্যবহারের জন্যই তিনি গানের জগত থেকে বেরিয়ে আসতে চলেছেন। তার রোজগার করা টাকায় কেনা বাড়ি থেকেও ফিরতে চলেছেন পুরনো বাড়িতে।

Related Articles

Back to top button