বিনোদনভাইরাল ভিডিওভিডিও

প্রেমে পড়েছিলেন কিন্তু ভেস্তে যায় বিয়ে : ‘চিরকুমার’ রতন টাটার প্রেমকাহিনী হার মানাবে সিনেমার গল্পকেও

Advertisements

Advertisements

পৃথিবীর অন্যতম সফল বিজনেস গ্রুপ ভারতের টাটা। টাটা গ্রুপের পঞ্চম চেয়ারম্যান ছিলেন বিখ্যাত শিল্পপতি রতন টাটা। আজ তিনি চুরাশি বছরের তরুণ। এত বয়স হলেও এখনো তিনি অত্যন্ত সফলতার সাথেই টাটা গ্রুপের ব্যবসায়িক কাজকর্ম দেখাশোনা করে চলেছেন। এত সাফল্য, এত প্রভাব, প্রতিপত্তি থাকা সত্ত্বেও এখনো অবিবাহিতই থেকে গিয়েছেন রতন টাটা। যৌবনকালে রতন টাটা খুবই সুদর্শন, সুপুরুষ ছিলেন। এমন একজন সফল সুপুরুষ কেন অবিবাহিত থেকে গেলেন তা এক রহস্য।

Advertisements

Advertisements

আসলে কম বয়সে রতন টাটার জীবনেও ভালবাসা এসেছিল। তিনি প্রায় বিয়েও করে ফেলেছিলেন। ঠিক কি ঘটেছিল? হিউম্যানস অফ বোম্বাই নামে একটি সংস্থাকে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় তিনি নিজে এই বিষয়ে বলেছিলেন। ১৯৩৭ সালে গুজরাতের সুরাটে জন্মগ্রহণ করেন রতন টাটা। যখন তাঁর মাত্র ১০ বছর বয়স তাঁর বাবা-মা এর বিবাহবিচ্ছেদ হয়ে যায় । বাবা-মা আলাদা হয়ে যাওয়ার পর রতন টাটা এবং তাঁর ভাই তাঁদের ঠাকুমার কাছেই মানুষ হন।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর রতন টাটার ঠাকুমা দুই নাতিকে নিয়ে ছুটি কাটাতে লন্ডন যান। পড়াশোনা নিয়ে বাবা নাভাল টাটার সাথেও মতপার্থক্য হয়েছিল রতন টাটার। রতন টাটা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কলেজে স্থাপত্যবিদ্যা পড়তে চেয়েছিলেন। কিন্তু তাঁর বাবা চেয়েছিলেন ছেলে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুক। শেষ পর্যন্ত ঠাকুমার হস্তক্ষেপে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আর্কিটেকচারে স্নাতক হন রতন টাটা।

স্নাতক হওয়ার পর দুই বছর কাজ করেন লস এঞ্জেলস শহরে। সেখানেই এক মার্কিন সুন্দরীর সাথে তাঁর সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তাঁরা দুজনে বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। কিন্তু হঠাৎ ঠাকুমার শরীর খারাপ হওয়ায় দেশে ফিরে আসেন রতন টাটা। তবে এর ফলে তাদের প্রেম বাধা আসেনি। রতন টাটা দেশে ফিরে আসার পরই ভারতে আসার কথা ছিল তাঁর প্রেমিকারও। কিন্তু ১৯৬২ সালের ভারত-চীন যুদ্ধ শুরু হয়। যুদ্ধের কারণে মেয়েকে ভারতে পাঠাতে চাননি রতন টাটার প্রেমিকার পরিবার। এর ফলেই রতন টাটা ও তাঁর প্রেমিকার সুন্দর সম্পর্কে ইতি পড়ে। এই ঘটনার পর আর বিয়ের দিকে হাঁটেননি রতন টাটা। আজও তিনি অবিবাহিত।

Related Articles