চক্রান্তের জন্য বলিউডে সফলতা পাননি মহানায়ক! বড় বাজেটের সিনেমাও হয়েছিল ফ্লপ

74

মহানায়ক উত্তম কুমার, বাংলা সিনেমার কিংবদন্তি অভিনেতা হিসেবে পরিচিত যিনি। যার হাত ধরে টলিউড ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে এসেছে একের পর এক নতুন চমক। তবে মহানায়ক হয়ে ওঠার পেছনে রয়েছে অনেক জীবন সংগ্রামের কাহিনী। দূর থেকে যতটা দেখতে মনে হয় সহজ ঠিক ততটাই তাকে অতিক্রম করতে হয়েছে কঠিন পরিস্থিতি। এর আগে দেখা গিয়েছিল বর্তমানে অন্যতম অভিনেতা যীশু সেনগুপ্তের কঠোর জীবন সংগ্রাম। এবার উঠে এলো মহানায়ক উত্তম কুমারের সম্পর্কে কিছু অজানা কাহিনী।

কর্মজীবনের শুরুতে তিনি তার প্রকৃত নাম অরুণ কুমার চ্যাটার্জী হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেন। প্রথম ‘দৃষ্টিনন্দন’ ছবিতে অভিনয় করেছিলেন মহানায়ক উত্তম কুমার। তবে কর্ম জীবনের শুরুতেই জীবন থাকে নিরাশ করেছে বহুবার। বেশ কয়েকটি ছবি পরপর ফ্লপ হয়েছে। যার ফলে তিনি তার নাম পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নেন। নাম পরিবর্তনের পর ১৯৫৩ সালে সাড়ে চুয়াত্তর নামক ছবিতে প্রথম হাজির হন। নিজের ফিল্মি নাম দেন উত্তম কুমার।

আরও পড়ুন:   ১০ হাজার পরিযায়ী শ্রমিককে খাবার প্রদান সানি লিওনের, অভিনেত্রীর প্রশংসায় নেট দুনিয়া

তবে পঞ্চাশের দশকেই ৫০ টিরও বেশি ছবি বাণিজ্যিকভাবে সফলতা অর্জন করতে পারেনি। পঞ্চাশের পরের দশকে হারানো সুর, সপ্তপদী, চাওয়া পাওয়ার মতো কয়েকটি ছবি বাণিজ্যিকভাবে সফল হয়েছিল।

আরও পড়ুন:   পোশাকের ফাঁক দিয়ে উঁকি দিচ্ছে ক্লিভেজ, হট লুকে ধরা দিলেন মধুমিতা

তার কারণ খুঁজতে গিয়ে জানা গেছে হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের এক ছবিতে মহানায়ক উত্তম কুমার কথা দিয়েও আসেননি। হেমন্ত মুখোপাধ্যায়-এর ‘বিশ সাল বাদ’ ছবিতে অভিনয় করেন উত্তম কুমার। এই ছবিটি বেশ সাফল্য অর্জন করেছিল সেই কারণেই পরিচালক হেমন্ত মুখোপাধ্যায় ঠিক করেছিলেন তার পরবর্তী ছবি শর্মিলীতেও মহানায়ককে দিয়ে অভিনয় করাবেন, তবে তার পরিকল্পনার জল ঢেলে তাকে ব্যাপক ক্ষতির মুখে ফেলে দিয়ে উত্তম কুমার তার কথা দিয়ে কথা রাখেনি। পরিচালক হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের সেই ছবির পরিকল্পনা অনুযায়ী রেডি ছিল সবকিছুই। তারপর থেকেই শুরু পরিচালক হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের সাথে সম্পর্কের তিক্ততা। সম্পর্কের তিক্ততা প্রভাব পড়েছিল মহানায়কের কর্মজীবনেও।

আরও পড়ুন:   দোলের উৎসবে অন্তরঙ্গ ওম-মিমি জুটি, পরস্পরকে রাঙিয়ে দিলেন ভালোবাসার আবিরে

মহানায়ক অভিনয়ের পাশাপাশি গান গাইতেন তার সিনেমায়। বিশ্বের সেরা পরিচালক সত্যজিৎ রায়ের সাথে কাজ করার সুযোগ পান মহানায়ক উত্তম কুমার। নায়ক, চিড়িয়াখানা প্রভৃতি সিনেমায় তার অভিনয় মন ছুঁয়ে যায় তৎকালীন দর্শকের। ষাটের দশকের সিনেমাগুলি সাফল্য অর্জন করার পরেই সুপ্রিয়া দেবী থেকে শুরু করে সুচিত্রা সেনের মতো তাবড় তাবড় অভিনেত্রীদের সাথে রোমান্টিক দৃশ্য অভিনয় করার সুযোগ পেয়েছিলেন মহানায়ক উত্তম কুমার।