ভারী বৃষ্টিতে ভাসতে চলেছে বাংলা, আগামীকালও চলবে তুমুল বৃষ্টি

126

বাইরে ঝমঝম বৃষ্টি, বাড়িতে আজ খিচুড়ি হওয়ার দিন। ভাবছেন বর্ষাকাল ফিরে এলো এত তাড়াতাড়ি! কিন্তু, জানেন তো প্রকৃতির উপর কার কি করার আছে। প্রকৃতির রোষ এখন বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ তৈরি করা। তাই করে চলেছে, আর বাংলা দেখছে বর্ষার মুখ।

গতকাল থেকেই কলকাতা ও তার আশেপাশে এবং দক্ষিণবঙ্গ জুড়ে বৃষ্টি হয়েছে। আজ সকাল থেকে ভারী বৃষ্টি হয়ে চলছে একাধিক জেলায়। ঘটনা হচ্ছে, বঙ্গোপসাগরের নিম্নচাপ পরিণত হয়েছে গভীর নিম্নচাপে। গত রবিবার থেকে হালকা বৃষ্টি দিয়ে শুরু হয়েছে নিম্নচাপের গতি। এদিন মঙ্গলবারও ভারী বৃষ্টির পাশাপাশি ঘণ্টায় ৭০ কিলোমিটার গতিবেগে ঝোড়ো হাওয়া বইবে রাজ্যের উপকূলবর্তী এলাকাগুলিতে।

আরও পড়ুন:   আবহাওয়া নিয়ে বড় খবর, রাজ্যের এই জেলাগুলিতে ব্যাপক বৃষ্টির সম্ভাবনা

বৃষ্টি, ঝড় নিয়েই সারাটা দিন কাটবে আজ বঙ্গ বাসীর। ইতিমধ্যে কলকাতার বিভিন্ন রাস্তায় জল জমে গিয়েছে। তাছাড়াও নিচু জমিগুলো জলে টইটুম্বুর। ইয়াস ঝড়ের থেকে এখনও যারা পরিত্রাণ পায়নি তারাও এই বৃষ্টির মুখোমুখি।

আরও পড়ুন:   ছাত্রদের থেকে মাইনে হিসেবে বছরে নেন মাত্র দু-টাকা, বর্ধমানের মহান শিক্ষক, গর্বিত গোটা বাংলা

আলিপুর আবহাওয়া অফিস সূত্রে খবর, অধিক বৃষ্টিতে ভাসবে দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর, পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, পুরুলিয়া। গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের একাধিক এলাকায় বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টির পূর্বাভাসও রয়েছে। এই জায়গাগুলি ছাড়াও অতি বৃষ্টির সম্ভবনা রয়েছে তামিলনাড়ু, কেরালা, কর্ণাটক সহ উত্তর পশ্চিম ভারতের রাজ্যগুলিতে। যেহেতু, নিম্নচাপের জেরে উত্তাল থাকবে সমুদ্র সেহেতু মৎস্যজীবীদের প্রথম থেকে নিষেধ করা হয় সমুদ্রে যেতে। অন্তত পক্ষে আগামী ১৪ তারিখ পর্যন্ত সমুদ্রে যাওয়ার নিষেধাজ্ঞা রয়েছে মৎস্যজীবীদের জন্য। এছাড়াও যারা ট্যুরিস্ট তাদের জন্যেও সমুদ্র এখন একেবারেই নিরাপদ নয়।