নিউজবিনোদন

মাদক চক্রে গ্ৰেফতার হওয়া রিয়া চক্রবর্তীকে আর কতদিন জেলে থাকতে হবে? জেনেনিন

শত চেষ্টার পরও হলো না জামিন। প্রয়াত সুশান্তের বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তীর জামিনের আবেদনে ফের ‘না’ দাগল আদালত। শুক্রবার এই খবর শোনা মাত্রই নিজেকে না সামলাতে পেরে কান্নায় ভেঙে পড়লেন রিয়া চক্রবর্তী। সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ৮১ দিন পর গ্রেফতার হন রিয়া। সুশান্ত মৃত্যু রহস্যে মাদক চক্রে যুক্ত থাকার কারণে গ্রেফতার হয়েছে সুশান্ত বান্ধবী রিয়া ও তার ভাই সৌভিক চক্রবর্তী সহ আরও কয়েকজন। গত কয়েকদিন ধরে লাগাতার রিয়া চক্রবর্তীকে জেরা করে তদন্তকারীরা। মঙ্গলবারও রিয়া চক্রবর্তীকে জেরা করে তদন্তকারীরা। এরপরেই এনসিবির জেরার মুখে পড়ে রিয়া স্বীকার করেন সে ড্রাগ নিতেন। এমনকি মাদক সেবন করতেন নিয়মিত। আর তারপরই সেদিন গ্রেফতার করা হয় রিয়াকে।

NDPS আইনের ৬৭ নম্বর ধারায় রিয়া চক্রবর্তী তাঁর দোষ কবুল করেছেন বলে সূত্রের খবর।ফলে জেল হেফাজত হয় অভিনেত্রীর। বাইকুলা জেলে রাখা হয়েছে অভিনেত্রীকে। সেখানে মাটিতেই চাটাই পেতে রাত কাটাচ্ছেন রিয়া। খাওয়ারে মিলছে ডাল-রুটি। এইসবের মাঝেই প্রথম দিন রিয়ার জামিনের আবেদন খারিজ করার পর, গতকাল ফের আবেদন করে রিয়ার উকিল।

গতকাল এই আদেশ স্থগিত রাখা হলেও ফের আজ শুক্রবার ছিল শুনানি। ফলে কিছুটা মনে আশার আলো দেখছিলেন অভিনেত্রী রিয়া। কিন্তু সেই আশায় জল ঢেলে দ্বিতীয়বারও জামিনের আবেদন খারিজ হয়ে যায়। আপাতত ১৮ দিন জেলে কাটাতে হবে তাকে । এর পরের সিদ্ধান্ত ১৪ দিন পরেই নেওয়া হবে বলে খবর। বাইকুল্লা জেলে সেখানেই রিয়াকে জানানো হয় আদালতের রায়ের কথা। সূত্রের খবর, আদালতের রায় শোনা মাত্রই রিয়া কাঁদতে শুরু করেন। অভিনেত্রীর মনোবলের ক্ষেত্রেও একটা বড় ধাক্কা লেগেছে বলেই মনে করা হচ্ছে।

জানা যাচ্ছে, NDPS আইন অনুসারে ২৭এ, ২১, ২২, ২৮ ও ২৯ ধারায় মামলা দায়ের করেছে NCB।অভিযোগ প্রমাণিত হলে হতে পারে ১০ বছরের জেল।শুক্রবার ১১ সেপ্টেম্বর সকালে বিচারক জি বি গুরাও রিয়া এবং শৌভিক চক্রবর্তীর পাশাপাশি আরও ৪ অভিযুক্তর জামিন সংক্রান্ত রায় ঘোষণা করেন। রায়ে জানানো হয়, গ্রেফতার হওয়া ৬ জন, অর্থাৎ রিয়া, শৌভিক, দীপেশ সাওয়ান্ত, স্যামুয়েল মিরান্ডা, আবদেল বসিত পরিহার ও জায়েদ ভিলাত্রার জামিনের আবেদন খারিজ করেছে আদালত। ফলে আগামি ২২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাইকুল্লা জেলেই কাটাতে হবে রিয়া চক্রবর্তীকে। তবে হার মানতে নারাজ রিয়া ও সৌভিক চক্রবর্তীর আইজীবী সতীশ মানশিন্ডে। এরপরেই তিনি জানান, ‘আমরা NDPS বিশেষ আদালতের নির্দেশনামা হাতে পেলেই পরবর্তী পদক্ষেপ নিয়ে আগামী সপ্তাহে সিদ্ধান্ত নেবো’।

Related Articles

Back to top button