মানসিক চিন্তা থেকে মুক্তি পেতে এই একটি কাজ করলেই পাবেন উপকার

মানসিক চিন্তা থেকে মুক্তি পেতে এই একটি কাজ করলেই পাবেন উপকার

বর্তমান পরিস্থিতিতে মানসিক যন্ত্রণা অনেকটাই বৃদ্ধি পেয়েছে। ঘরে বসে বসে মানুষ গুমরে গুমরে অসুস্থ হয়ে পড়ছে। মনের ভেতর এমন এক কষ্ট অন্যকে বলে বোঝানো যায় না। এই রকম একটা সাংঘাতিক সময়ে আপনার পাশে থেকে আপনাকে সঙ্গ দিতে পারে একমাত্র সঙ্গীত। হ্যাঁ ঠিক শুনেছেন, মন খারাপে আপনার আসল সঙ্গী হতে পারে সঙ্গীত।

তীব্র মাথাব্যথা, মানসিক যন্ত্রণা, হতাশা ইত্যাদি থেকে বাঁচতে গান শুনুন। গান হতে পারে কিংবা কোন যন্ত্রও আপনার মন ভালো হতে পারে। বিজ্ঞানীদের লক্ষ্য করেছেন, দীর্ঘদিন ধরে কোমায় থাকা ব্যক্তি সঙ্গীতের মূর্ছনায় সাড়া দিয়েছেন। শরীরের ব্যথা কমানো, ক্যান্সার রোগীকে সুস্থ করতে, ভয়, দুশ্চিন্তা দূর করতে, স্কিজোফ্রেনিক রোগীর চিকিৎসা গানকে ব্যবহার করা হয়।

এর জন্য যে সব সময় আপনাকে ডাক্তার এর কাছে ছুটতে হবে বা কখনো এক্সপার্টের সাহায্য নিতে হবে এমনটা নয়। আপনি নিজেই নিজের এই থেরাপি করতে পারে। আপনি যদি ছোটবেলায় গান চর্চা করে থাকেন, পরবর্তীকালে কাজের চাপে তা হয়ত ধামাচাপা পড়ে গেছে তাহলে ছোটবেলার সেই প্রতিভাকে আবার জাগ্রত করতে পারেন। পুরনো হারমোনিয়াম কিংবা যা আপনি বাজাতেন সে বাজনা আবার বের করে ধুলো ঝেড়ে আবার শুরু করে দিন। দিনে অন্তত এক ঘন্টা নিজেকে সঙ্গীতের মধ্যে রাখুন।

এমন কোনো গান শুনুন যে গানের কথা আপনাকে নতুন করে শক্তি যোগাবে। আপনি যদি ঠাকুরে বিশ্বাস করেন তাহলে কোন শ্যামা সংগীত ঠাকুরের কোন গান শুনতে পারে। তাহলে আপনার মন ভালো হয়ে উঠবে।

প্রতিদিনের দিনের একঘেয়েমি ব্যায়াম থেকে মুক্তি পেতে ব্যবহার করতে পারেন এই সঙ্গীতকে। হেডফোনে রিদিমিক গান চালিয়ে এক্সারসাইজ করুন। ঘামও ঝরবে, আবার মনটাও ভালো থাকবে।