কসবায় ৭জন পুলিশকর্মী সহ ১জন সিভিক ভলান্টিয়ার করোনাক্রান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদন: করোনার থাবায় একসঙ্গে আক্রান্ত হলেন ৭জন পুলিশকর্মী সহ ১জন সিভিক ভলান্টিয়ার। জানা যাচ্ছে, এদিন ৬৭ নম্বর ওয়ার্ডের বিবি চ্যাটার্জি রোডের বিভিন্ন আবাসন এবং বাড়িতে স্যানিটাইজেশনের কাজ হয়েছে। শনিবারই করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন কসবা থানার ৮ কর্মী।

প্রসঙ্গত, কলকাতা পুলিশে ইতিমধ্যে ৫৫০ জনের কাছাকাছি সদস্য করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তাই কন্টেনমেন্ট জোনগুলির পাশাপাশি শহরের বাকি এলাকার কী পরিস্থিতি, তা খতিয়ে দেখতে শুরু করেছে লালবাজার।

আক্রান্তদের মধ্যে ১ জন সাব ইন্সপেক্টর, ৩ জন অ্যাসিস্ট্যান্স সাব ইন্সপেক্টর, ২ জন কন্সটেবল ও ১ জন সিভিক ভলান্টিয়ার রয়েছেন। তাদের রিপোর্ট পজিটিভ আসতেই, গোটা এলাকা জুড়ে চাঞ্চল্য। সমস্ত কাজ বহাল রাখা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে পুলিশ সূত্রে। এর পরেই শুরু হয় স্যানিটাইজেশন এর কাজ। এদিন বিবি চ্যাটার্জি রোড, কসবা বাজার, বোসপুকুর সহ থানা পার্শ্ববর্তী একাধিক এলাকায় ঘুরে ঘুরে সেনিটেশন অভিযান চালালেন পুরকর্মী ও দমকলকর্মীরা।

সূত্রের খবর, শহরের যে সমস্ত ঘিঞ্জি এলাকায় সংক্রমণ দ্রুত ছড়াচ্ছে, সেই সব এলাকা সম্পর্কে তথ্য জোগাড় করে তা বিশ্লেষণ করতে অফিসারদের নির্দেশ দিয়েছে লালবাজার। ওই তথ্যের ভিত্তিতে কলকাতা পুরসভার সঙ্গে আলোচনা করে প্রয়োজনে আরও কিছু এলাকা কন্টেনমেন্ট জোনের আওতায় আনা হবে।পাশাপাশি জীবাণুমুক্ত কাজ চালাবে কলকাতা পুরসভা।

এর আগেও করোনা ঠেকাতে কলকাতা শহরকে জীবাণুমুক্ত করার উদ্যোগ নিয়েছিল কলকাতা পুরসভা। পুরসভার প্রত্যেকটি এলাকায় এলাকায় কাউন্সিলর ও জনপ্রতিনিধি দের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল এলাকায় মানুষকে সচেতন ও তার পাশাপাশি নিজের এলাকা পরিষ্কার রাখতে তাদেরকেই উদ্যোগ নিতে বলা হয়েছিল।