অর্থনীতিরাজ্য

কর্মসাথী প্রকল্পে আবেদন শুরু, বেকার যুবক যুবতীরা পাবেন ২ লক্ষ টাকার সাবসিডি

করোনা আবহে দেশের বেকারত্ব দিন দিন বেড়েই চলেছে। এখন প্রায় সব যুবক-যুবতীরাই উচ্চশিক্ষিত তারপরও তারা কাজের অভাবে বাড়িতে বসে। বহু চাকরীর চেষ্টা করার পরও তারা অসফল। বর্তমান সময়ে দাঁড়িয়ে চাকরি একটি দুর্লভ বিষয় হয়ে উঠেছে। তাই পশ্চিমবঙ্গ সরকার সেই সমস্ত বেকার যুবক-যুবতীদের কথা ভেবেই এগিয়ে এলেন।

সরকার প্রত্যেক যুবক যুবতীকে সাহায্য করবে যাতে তারা ছোটখাটো কোন ব্যবসা করতে পারে। প্রকল্পটির নাম ‘কর্ম সাথী প্রকল্প’। রাজ্য সরকারের এই ধরনের সিদ্ধান্ত নেওয়ার কারণ প্রত্যেক যুবক যুবতীর সাহায্য ও সমাজকে অর্থনৈতিক দিক দিয়ে স্থায়ী করা। আসুন দেখে নেওয়া যাক কিভাবে আবেদন করা যাবে এই ‘কর্ম সাথী প্রকল্পে’।

খবর অনুযায়ী জানা গেছে এই প্রকল্পের মাধ্যমে সুবিধা দেওয়া হবে প্রায় ১ লাখ যুবক-যুবতীকে। রাজ্য সরকার ৫০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে এই প্রকল্পের জন্য। আবেদন করার জন্য রাজ্য সরকারের কিছু নিয়মাবলী আছে তার মধ্যে একটি নিয়ম হলো আবেদনকারীর বয়স ১৮ থেকে ৩০ হতে হবে, ও আবেদনকারীর অষ্টম শ্রেণীর বৈধ সার্টিফিকেট থাকতে হবে।

এই প্রকল্পে সরকারের তরফ থেকে অনেক তথ্য তুলে ধরা হয়েছে অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে। যে সমস্ত নথি আবশ্যিক তা হলো।

১: পরিচয়ের প্রমাণপত্র (ছবিসহ)।

২: স্থায়ী বাসিন্দার সার্টিফিকেট।

৩: আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতার প্রমাণ।

৪: এমনকি বয়সের উপযুক্ত প্রমান পত্র লাগবে আবেদন করার সময়।

৫: এসসি/ এসটি/ ওবিসি/ সংখ্যালঘু বিশেষভাবে সক্ষম আবেদনকারীদের জন্য শংসাপত্র।

৬: প্রকল্পের রিপোর্ট।

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার একটি বিশেষ নির্দেশিকা জারি করেন লোন ও ভর্তুকি দেওয়ার জন্য। নির্দেশিকায় পরিষ্কার ভাবে জানানো আছে আবেদনকারীকে নিজস্ব মূলধন হিসেবে ৫ থেকে ১০ শতাংশ টাকা জোগাড় করতে হবে।

ক: আবেদনকারীকে ৫ শতাংশ অর্থের সংস্থান করতে হবে ৫০ হাজার টাকা প্রকল্পের জন্য।

খ: আবেদনকারীকে ১০ শতাংশ টাকা জোগাড় করতে হবে ৫০ হাজার থেকে ২ লক্ষ্য টাকার প্রকল্পের জন্য।

গ: এই অংশীদারিত্ব ৫ শতাংশ করা হবে শুধুমাত্র তফসিলি জাতি, উপজাতি, ও মহিলা আবেদনকারীদের ক্ষেত্রে।

রাজ্য সরকার একটি নির্দেশিকা জারি করেছেন ভর্তুকি কত হবে উপর।

ক: প্রতি ক্ষেত্রেই রাজ্যের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প দপ্তর গুলি শুরুতেই ভর্তুকি হিসেবে দেবে ১৫ শতাংশ অর্থ। রাজ্য সমবায় ব্যাংক কম সুদে বাকি ৭৫-৮০ শতাংশ টাকা দেবে।

খ: উদ্যোগীরা ফেরত পাবেন ৫০ শতাংশ যদি তারা সময়মতো সুদ পরিশোধ করে তবেই।

সাধারণ যুবক-যুবতীর জন্য কর্মসংস্থানের অফলাইন ফর্মটি পাওয়া যাচ্ছে।

১: গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় বিডিও অফিসে।

২: জেলার পৌরসভা এলাকার জন্য এসডিও অফিসে।

তাহলে চিন্তা কিসের স্বাবলম্বী হয়ে উঠুন। লোন নিয়ে ব্যবসা আজই শুরু করে দিন।

Related Articles

Back to top button