লাল গাউনে পরীর বেশে মোহময়ী কনীনিকা ও তার মেয়ে, ছবি দেখে মুগ্ধ নেটিজেনরা

94

কনীনিকা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রথম দেখা যায় জি বাংলায় সম্প্রচারিত ‘স্বপ্ননীল’ নামের একটি ধারাবাহিকে। বড় পর্দায় তাকে প্রথম দেখা যায় মলয় ভট্টাচার্যের চলচ্চিত্র ‘তিন এক্কে তিন’-এ। এছাড়াও অভিনেত্রীকে দেখা গিয়েছে :এক আকাশের নিচে’, ‘কখনো মেঘ কখনো বৃষ্টি’, ‘অন্দরমহল’ এর মতন জনপ্রিয় ধারাবাহিকে। এইটুকু ইন্ট্রো না দিলেও আজকের সহচরী কনীনিকাকে অনেকেই চেনেন। তাও যারা দীর্ঘদিন ধরে ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে যুক্ত তাদের ফেলে আসা স্মৃতি নিয়ে দু’কথা লিখলে মন্দ হয় না ।

নাহ, শুধু ধারাবাহিক দিয়েই কাজ শেষ করেননি তিনি। কাজ করেছেন বেশ কয়েকটি জনপ্রিয় বাংলা সিনেমায়। তাকে দেখা গিয়েছে ‘কণ্ঠ’, ‘হামি’, ‘মুখার্জী দার বউ’, ‘চতুষ্কোণ’ এর মতন দুর্দান্ত সব মুভিতে।

অভিনয় জীবনে এতটুকু ফাঁক রাখেননি অভিনেত্রী। এরপরেই ২০১৯ এর জুন নাগাদ সকলকে সুসংবাদ দেন। তার ঘরে আসে ফুটফুটে একটি কন্যা সন্তান। মেয়ের কাজ একাই সামলাতেন তিনি। সেইসময় ফেসবুক লাইভে আসতেন। অনুরাগীদের সঙ্গে কথা বলতেন। এভাবেই যোগাযোগ পর্ব চলতে থাকে। এখন মেয়ে একটু বড় হয়েছে, তাই নতুন করে কাজে ফিরেছেন কনীনিকা। সম্প্রতি তাকে রোজ স্টার জলসার পর্দায় দেখা যাচ্ছে ‘আয় তবে সহচরী’ ধারাবাহিকে। কনীনিকার অভিনয়ে মুগ্ধ তার অনুরাগীরা। এতটাই সাবলীল অভিনয় ও সুন্দর স্ক্রিপ্টের জন্য কনীনিকা ওই একই স্লটের বেশ কয়েকটি ধারাবাহিকে মাত দিচ্ছেন।

শুধু ধারাবাহিক বা সিনেমা দিয়েই যে মন জয় করছেন এমনটা নয়। এবারে তিনি তাক লাগলেন নতুন ফটোশ্যুটে। মা মেয়ে জুটি বেধে নতুন ও চোখ ধাঁধানো ফটোশ্যুটের মধ্যে দিয়ে বুঝিয়ে দিলেন এই বয়সে এবং হেলদি ফিগারেও তাক লাগানো যায়। মা হয়ে গেলেও যে গ্ল্যামার বেড়ে যায় তা কনীনিকা রসে বশে বুঝিয়ে দিয়েছেন। এদিন মা মেয়ে দুজনেই টুকটুকে লাল রঙের গাউন পড়ে ছবি তোলেন। ক্যামেরার সামনে দুজন ছিল অনবদ্য। অভিনেত্রীর মেয়ে ছিল একটি কিউটের ডিব্বা, অন্যদিকে অভিনেত্রী কনীনিকা যেন রূপকথার গল্পের পরী। তার অনুরাগীরা যেমন এমন সুন্দর ছবি দেখে মুগ্ধ তেমনই মুগ্ধ হয়েছেন, এমনকি যারা তার সিনেমা বা সিরিয়াল কম দেখেছেন বা কনীনিকাকে কম চেনেন তারাও মুগ্ধ।

আরও পড়ুন:   ২০বার আত্মহত্যার চেষ্টায় ব্যর্থ, অবশেষে ঘর থেকে উদ্ধার অভিনেত্রীর মৃত দেহ