করোনা মোকাবিলায় মোদির ত্রাণ তহবিলে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন মমতা

রাজনৈতিক ময়দান থেকে শুরু করে সমস্ত কিছুতেই একে অপরের বিপরীতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এছাড়া বিভিন্ন সময়ে রাজ্যের বকেয়া টাকা রাজনৈতিক কারণে আটকে রাখা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু করোনার কারণে সেই সব দিন অতীত। করোনা মোকাবিলায় এখন কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করছে রাজ্য ও কেন্দ্র সরকার। এবার তিনিই করোনা যুদ্ধের নিজের অর্থ উপার্জনের ৫ লাখ টাকা দান করলেন প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে। পাশাপাশি ৫ লক্ষ টাকা তিনি দান করেন রাজ্য ত্রাণ তহবিলে।

করোনা মোকাবিলায় রাজ্যবাসীকে বাঁচাতে যথেষ্ট ভালো কাজ করছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শোনা যায় প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর মুখে। রাজ্য ও কেন্দ্র একে অপরের সাথে মিলিত হয়ে লড়ছে করোনার বিরুদ্ধে। শুধু সেখানেই থেমে নেই তিনি এবার নিজের উপার্জন থেকে ১০ লক্ষ টাকা দেওয়ার কথা জানিয়েছেন। ত্রাণ তহবিলে দিয়েছেন পাঁচ লক্ষ টাকা। আর বাকি পাঁচ লাখ টাকা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে। এদিন সন্ধ্যাবেলা মিডিয়ার মাধ্যমে তা জানান তিনি।

করোনার বিরুদ্ধে আমাদের দেশ লড়ার যে চেষ্টা করছে, তার সমর্থনে আমার এই অনুদান। মঙ্গলবার বিকেলে তিনি নিজেই টুইট করে জানান তিনি টুইট করেন, ‘আমি বিধায়ক বা মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে কোনও মাইনে নিই না। এমনকী সাতবারের সাংসদ থাকার জন্য যে পেনশন দেওয়া হয় তাও ছেড়ে দিয়েছে। আমার তৈরি কিছু মিউজিক ও বই থেকে রয়্যালটি বাবদ কিছু টাকা পাই। তার থেকে করোনা মোকাবিলার জন্য প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় ত্রাণ তহবিলে পাঁচ লক্ষ টাকা ও রাজ্যের জরুরি ত্রাণ তহবিলে পাঁচ লক্ষ টাকা সাহায্য করেছি।’