বিনোদন

অভিনেত্রী মনীষা কৈরালার সঙ্গে বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক ছিল নানা পাটেকরের

আমরা বহু অভিনেতা-অভিনেত্রীদের ভালোবাসা ভাঙ্গা গড়ার গল্প শুনে থাকি। এমনকি বিবাহিত পুরুষ এবং নারীরা পরকীয়ায় মেতে ওঠেন বারবার। তবে এমন অনেক ভালোবাসা থাকে যা কখনো পরিণতি পায় না। অভিনেতা নানা পাটেকর এবং অভিনেত্রী মনীষা কৈরালার প্রেম কাহিনী একেবারেই অন্যরকম। তাদের মধ্যে প্রেম তারপর বিচ্ছেদ, তারপর রুপোলি পর্দায় বাবা এবং মেয়ের জুটি, এই সবকিছু মিলিয়ে নব্বইয়ের দশকে তারা ছিলেন আলোচনা শিরোনামে।

আমরা সকলেই জানি যে নানা পটেকার এবং মনীষা কৈরালার একটি বিখ্যাত সিনেমা হলে অগ্নিসাক্ষী। এই সিনেমাটি তৈরি করার সময় থেকেই তাদের মধ্যে ভালোবাসার সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেই সময় সবেমাত্র বিবেক মুস্কান এর সঙ্গে ব্রেকআপ হয়েছিল মনীষা কৈরালার। কিছুদিনের মধ্যেই নানা পাটেকার এর সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন অভিনেত্রী। এরপর শুটিং এর মাঝেই চলতে থাকে তাদের প্রেম পর্ব।

অগ্নিসাক্ষী তাদের সবথেকে আলোচিত সিনেমা ছিল খামোশি। এখানে তাদের বাবা এবং মেয়ের ভূমিকায় অভিনয় করতে দেখা যায়। তবে তাদের নিয়ে তখনও খবর আলোচনা শিরোনামে ছিল। সেই সময় মনীষার প্রতিবেশীদের কাছ থেকে একটি খবর পাওয়া যায় যে,প্রায়ই মনীষা সকাল বেলা থেকেই নানা পাটেকার এর সাথে দেখা করতে যেতেন।

এই প্রসঙ্গে জিজ্ঞাসা করায় নানা পাটেকার একটি সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন যে,”মনীষা প্রায়ই আমার মা এবং ছেলের সঙ্গে দেখা করতে আসত। তারাও তাকে আন্তরিকতার সঙ্গে গ্রহণ করেছিল”।

কিন্তু এই প্রেমের মাঝখানে ও তাদের মাঝে মাঝে ঝগড়া হতো। সহ-অভিনেতার সঙ্গে কোনো অন্তরঙ্গ দৃশ্য করলেই মনীষা কৈরালা কে কথা শোনাতো নানা পাটেকার। বহুবার এমন হয়েছে যে, মনোমালিন্যের কারণে তাদের মত কথা বলা বন্ধ হয়ে গেছে।

অন্যদিকে নানা পাটেকার তার স্ত্রীর সঙ্গে আলাদা থাকলেও তার সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদ করেনি। আবার মনীষা কৈরালা কেউ বিয়ে করার জন্য তার কোনো পরিকল্পনা ছিল না।এরই মধ্যে হঠাৎ করে অভিনেত্রী আয়েশা জুলকা সঙ্গে নানা পাটেকার কে অন্তরঙ্গ অবস্থায় দেখে ফেলায় মনীষা কৈরালা। এরপরই তাদের সম্পর্কের ইতি হয়ে যায়।

পিকআপ প্রসঙ্গে একটি সাক্ষাৎকারে একবার নানা পাটেকার বলেছিলেন যে,”মনীষা খুবই স্পর্শ কাতর একজন অভিনেত্রী। তার বোঝা উচিত, তার সঙ্গে কারোর প্রতিযোগিতার প্রয়োজন নেই। কার কাছে সবকিছুই প্রয়োজনের তুলনায় অনেকটাই বেশি রয়েছে। কিন্তু সে নিজের জীবনের সঙ্গে যা করেছে, তাদেরকে আমি চোখের জল আটকাতে পারি না। হয়তো এখানে তাকে নিয়ে আমার বলার কিছু নেই। যদি আপনার কখনো ব্রেকআপ হয়, তাহলে ব্যথা কি জিনিস আমি ঠিক বুঝতে পারবেন। দয়া করে এই প্রসঙ্গে আর কথা বলবেন না।এই বিষয়ে কথা বলতে গেলে আমার অনেক কথা মনে পড়ে যায়”।

তবে ব্রেকআপের পর কারো জীবন থেমে থাকেনি। নানা পাটেকার এরপর বহু অভিনেতার সঙ্গে মনীষা কৈরালার প্রেমের গুঞ্জন শুনতে পাওয়া গেছে। পরবর্তীকালে নেপালি ব্যবসায়ী সম্রাট দালকে বিয়ে করে সংসার পাতেন অভিনেত্রী। তারপর দুই বছরের মধ্যেই তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে যায়। অন্যদিকে আয়েশা জুলকা সঙ্গে লিভ টুগেদার শুরু করেছিলেন নানা পাটেকার। এরপর জীবনের নানা চড়াই উৎরাই পেরিয়ে স্ত্রী নীলকান্তির সঙ্গে ভালোই রয়েছেন অভিনেতা।

Related Articles

Back to top button