অফবিট

মেয়ের স্বপ্ন ডাক্তার হওয়া! অনলাইন ক্লাসের জন্য গরু বিক্রি করে স্মার্টফোন কিনে দিলেন কৃষক বাবা

করোনার মত মারণ ভাইরাসকে রোধ করার জন্য বিশ্বের প্রতিটি দেশেই লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। এই লকডাউন এর জন্য স্কুল-কলেজ সবকিছুই বন্ধ রাখা হয়েছে। চালু করা হয়েছে অনলাইনে ক্লাস। অনলাইনে ক্লাস এর জন্য প্রয়োজন ল্যাপটপ বা স্মার্টফোনের। কিন্তু যারা খুবই গরীব সেই সমস্ত ঘরের ছাত্র-ছাত্রীদের পক্ষে অনলাইনে ক্লাস করাটা একটু চাপের হয়ে যায়। কারণ তাদের মধ্যে অনেকেরই ল্যাপটপ বা স্মার্টফোন কেনার সামর্থ্য নেই। এবার এই ধরণেরই নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক দরিদ্র কৃষকের করুন কাহিনী সোশ্যাল মিডিয়াতে আপলোড করেছে ‘হিউম্যানস অফ বম্বে’ নামে একটি পেজ।

ওই কৃষকের মাসিক রোজগার 5000 টাকা। আর লকডাউনের মধ্যে বন্ধ হয়ে গিয়েছে রোজগারের পথ । রোজকার বন্ধ হওয়ায় স্মার্টফোন কেনা তাদের কাছে সম্ভব ছিল না। তাই ওই কৃষকের মেয়েটি প্রতিদিন অনলাইন ক্লাস করতে পারত না। কখনো-সখনো কারো কাছে ফোন চেয়ে অনলাইন ক্লাস করত আর বেশিরভাগ সময়ই সে ক্লাসে যোগদান করতে পারত না। স্মার্টফোন জোগাড় করতেই ওর একটা দিন চলে যেত।

ওই কৃষকের মুখ থেকে শোনা যায় দারিদ্রতার সাথে লড়াই করতে গিয়ে তিনি ক্লাস এইট এর পর আর পড়াশোনা করতে পারেননি। কিন্তু উনার দুই মেয়ের কোন ত্রুটি রাখেননি কৃষকটি। মেয়ের স্বপ্ন বড় ডাক্তার হওয়া। তাই মেয়ের পড়াশোনায় যাতে ক্ষতি না হয় সেইজন্য অবশেষে অনলাইন ক্লাস এর জন্য কৃষকটি বন্ধুবান্ধবের কাছে টাকা চেয়ে একটি স্মার্ট ফোন কিনে দেয় তার মেয়েকে। স্মার্টফোনটা পেয়ে কৃষকের মেয়েটি মুখে ফুটেছিল রৌদ্রোজ্জ্বল হাসি।

কয়েক মাস পরে কৃষকটি যাদের কাছ থেকে টাকা ধার নিয়েছিল তারা তাদের ওই টাকা ফেরত চায়। তখন কোনো পথ খোলা না পেয়ে কৃষক গরু বিক্রি করে স্মার্টফোনের জন্য ধার করা টাকা মেটায়।

Related Articles

Back to top button