করোনা আবহেই শুরু স্কুলের আংশিক পঠনপাঠন, জেনে নিন কেন্দ্রের নতুন গাইডলাইন

করোনা আবহেই শুরু স্কুলের আংশিক পঠনপাঠন, জেনে নিন কেন্দ্রের নতুন গাইডলাইন

আগস্ট মাসের শেষের দিকে আনলক ৪ পর্যায়ের জন্য নতুন গাইডলাইন প্রকাশিত হয়েছিল। সেইসময় জানানো হয়েছিল আগামী ২১ সেপ্টেম্বর থেকে শর্তসাপেক্ষে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ুয়ারা স্কুলে যেতে পারবে। তবে সেক্ষেত্রে অবশ্যই অভিভাবকদের অনুমতির প্রয়োজন আছে। স্কুল কর্তৃপক্ষকে চিঠি দিতে হবে অভিভাবকদের। মঙ্গলবার স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফ থেকে জারি করা হয়েছে স্কুলে যাবার জন্য বিশেষ গাইডলাইন।

কি কি বলা হয়েছে সেই গাইডলাইনে, জেনে নিন-

১) শুধুমাত্র কনটেনমেন্ট জোনের বাইরের স্কুলগুলিই খোলা হবে। কোনও শিক্ষক কিংবা পড়ুয়া যাঁরা কনটেনমেন্ট জোনের মধ্যে থাকেন, তাঁরা স্কুলে আসতে পারবেন না।

২) ৬ ফুটের দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। মুখে সর্বদা মাস্ক থাকতে হবে। বার বার সাবান বা স্যানিটাইজার দিয়ে হাত ধুতে হবে।

৩) যে সমস্ত স্কুলগুলোকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে, সেগুলিকে আগে ভালভাবে স্যানিটাইজ করে তবেই ক্লাস শুরু করা হবে।

৪) হাঁচি বা কাশির সময় মুখ চেপে রাখতে হবে। কেউ অসুস্থ থাকলে স্কুলকে আগেই জানাতে হবে। স্কুলচত্বরে প্রকাশ্যে থুতু ফেলা যাবে না।

৫) পড়ুয়াদের স্কুলে যাওয়া বাধ্যতামূলক নয়। অনলাইন ক্লাসও করা যাবে। অভিভাবকের লিখিত অনুমতি নিয়েই বিদ্যালয়ে আসতে পারবে।

৬) ক্লাসে কিংবা স্টাফ রুমে এসির ব্যবহার করা হলে তার তাপমাত্রা কেন্দ্রের গাইডSলাইন অনুযায়ী ২৪-৩০ ডিগ্রির মধ্যেই রাখতে হবে।

৭) সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে স্কুলের লকার রুম ব্যবহার করতে হবে।

৮) স্কুলে বায়োমেট্রিকের ব্যবহার আপাতত বন্ধ রাখতে হবে।

৯) প্রার্থনা, স্কুলের মাঠে খেলা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।

১০) আপাতত ৫০ শতাংশ কর্মী নিয়েই স্কুলের কাজ চালাতে হবে।

এখন এই করোনার সময়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের নির্দেশ মেনে চলতে হবে। ছাত্রছাত্রীরা নিয়ম পালন করছে কি না, শিক্ষক-শিক্ষিকা ও স্কুলের অন্যান্য স্টাফরা নজর রাখবেন।