বন্ধ হোক খড়কুটো! ধারাবাহিকের ত্রিকোণ প্রেম দেখতে চাইছেন না দর্শকরা

30

ধারাবাহিকে ত্রিকোণ প্রেম অথবা পরকীয়া মানেই তার বারোটা বেজে গেছে। এবার স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক খরকুটো (Khorkuto) দেখে তেমনটাই মনে করছেন দর্শক। সৌগুণের সুখের সংসারে অনুপ্রবেশ করেছে তিন্নী। মুখার্জি পরিবারে বিজয়া দশমীর দিনে এসেই সৌজন্য দার প্রতি নিজের সুপ্ত ভালোবাসার কথা স্বীকার করেছেন তিন্নী (Tinni) যা দেখে বেজায় চটেছেন দর্শক।

সন্ধ্যে সাড়ে সাতটা মানেই টিভির সামনে সৌজন্য (Soujanya) গুণগুনের কেমিস্ট্রি দেখতে বসে পড়েন সিরিয়াল প্রেমীরা। মিষ্টি মেয়ে গুনগুন তার হাসি ঠাট্টা আর ভালোবাসা দিয়ে মাতিয়ে রাখে তার শশুরবাড়ি অর্থাৎ মুখার্জি পরিবার। ওদিকে তার ক্রেজি বর গম্ভীর স্বভাবের সৌজন্যের প্রতি প্রথম দিকে ভালোবাসায় খামতি থাকলেও ধীরে ধীরে তার প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়ে গুনগুন (Gungun)। এমনকি বাপের বাড়ি চলে গেলেও সৌজন্যের টানে ফিরে আসতে বাধ্য হয় গুনগুন।

আরও পড়ুন:   কৌশানিকে ছেড়ে হিয়ার সঙ্গে প্রেম! বনির সঙ্গে বড়ো পর্দায় খুব শীঘ্রই আসছে অনামিকা

সব ঠিকঠাক চলছিল। বাড়িতে প্রথমবার খুব ধুমধাম করে দুর্গা পুজোর আয়োজন করা হয়। গান গল্প আর নাচে মেতে থাকে খরকুটো পরিবার। দুর্গা পুজোতে সৌজন্যের বিদেশি বস বাঙ্গালী বাড়ির পুজোর আবহ দেখে বিস্মিত হন। এমনকি গুণগুনের সঙ্গে ঢাকের তালে কোমর দুলিয়ে নাচতে শুরু করে সে। তবে বস একা নন বাড়িতে আগমন হয় তিন্নির। সে আবার প্রথম থেকেই সৌজন্যের প্রতি দূর্বল। দশমীর দিন গুণগুনের বরণডালা থেকে সিঁদুর নিয়ে সৌজন্যের নামে সিথিতে রাঙিয়ে নেয় সে। এমনকি বাড়ি ফিরে রাতদুপুরে সৌজন্য কে ফোন করে তার কাছে আসার জন্য অনুরোধ জানায় এবং অমান্য করলে আত্মহত্যার হুমকি দেয়।

অবস্থা বেগতিক বুঝে অনিচ্ছা সত্ত্বেও নেহাত গুণগুনের কথা মানতে তিন্নির বাড়িতে হাজির হয় সৌজন্য। তিন্নির সামনেই গুনগুনকে ভিডিও কল করে সে। যা মোটেও ভালো চোখে নেয় নি বটকা সহ বাড়ির অন্যান্যরা। তারা সৌজন্য কে দোষারোপ করা শুরু করে। সম্প্রতি সিরিয়ালের এই নতুন টুইস্ট দেখে রেগে আগুন সৌগুন অনুরাগীরা।তাদের স্পষ্ট মন্তব্য, এভাবে ত্রিকোণ প্রেম ভাঙিয়ে সিরিয়ালের TRP বাড়ানো যাবে না। বরং “দেশের মাটি” র মত বন্ধ করে দিতে হবে।