মুখ্যমন্ত্রীরদের সঙ্গে আলোচনার পরেই, রবিবার লকডাউন বাড়ানোর ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর?

চাকরি পেতে প্রধানমন্ত্রীর দ্বারস্থ ১ কোটি তরুণ

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে দেশজুড়ে চলছে 21 দিনের লকডাউন। আগামী 14 এপ্রিল তার মেয়াদ শেষ হবে। তার পরেও কি বাড়বে লকডাউন তা নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে। তা নিয়ে শনিবার দেশের সব মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনায় বসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কেন্দ্র সূত্রে দাবি সেই বৈঠকের পরেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে লকডাউন চালানো নিয়ে এবং রবিবার প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করতে পারেন।

ইতিমধ্যেই অনেক রাজ্য কেন্দ্রের কাছে লকডাউনের দিন সংখ্যা বাড়ানোর আর্জি জানিয়েছেন। কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় না থেকে উড়িষ্যার মুখ্যমন্ত্রী নিজের রাজ্যে 30 এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউনের সময়সীমা বাড়িয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিও লকডাউন বাড়ানোর সম্ভাবনায় রয়েছে বলে জানিয়েছেন। তবে আগামীকাল বৈঠকের সিদ্ধান্ত দেখার পর প্রয়োজনে নিজে সিদ্ধান্ত নেবেন।

বুধবার সর্বদলীয় বৈঠক ডাকার পর 14 ই এপ্রিল লকডাউন তোলা সম্ভব নয় বলে হালকা আভাস দিয়েছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী। দেশের সব মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে আগামীকাল বৈঠকে লকডাউন এর রূপরেখা কেমন হবে, কোথায় লকডাউন তোলা হবে এবং কোথায় রাখা হবে, করোনা হটস্পট গুলি নিয়ে আলোচনা করবেন। কোন কোন রাজ্যের কি অসুবিধা এবং চাহিদার কথা শুনবেন প্রধানমন্ত্রী।

কেন্দ্র সূত্রে খবর দ্বিতীয় ধাপের লকডাউন এর বেশ কিছু পরিবর্তন আসতে পারে। এবং নানা ক্ষেত্রে মিলতে পারে ছাড়। এই পরিস্থিতিতে অঞ্চল গুলিকে করোনা সংক্রমনের নিরিখে তিনটি ভাগে ভাগ করা কথা ভাবছে বিপদজনক এলাকা, উদ্বেগজনক এলাকা এবং বিপদ মুক্ত এলাকা। এর উপর ভিত্তি করে লকডাউন কড়াকড়ি ও শিথিল নিয়ে ভাবনা চলছে কেন্দ্রের। বিশেষজ্ঞরা মনে করছে এই পরিস্থিতিতে মানুষকে বাঁচাতে লকডাউন বাড়ানোই একমাত্র পথ।