অফবিটবিনোদনভাইরাল

ছোট্ট পোশাকে অশ্লীল নাচ, ফের ট্রোল হলেন রানাঘাটের রানু মন্ডল, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

সোশ্যাল মিডিয়া যে কারো ভাগ্য পরিবর্তন করে দিতে পারে। ঠিক এমনই একটি ঘটনা ঘটল রানাঘাটের রানু মন্ডলের সাথে। লতা মঙ্গেশকরের গান ‘এক পেয়ার কা নাগমা হে’ গেয়ে তিনি রাতারাতি স্টার হয়ে যায়। রানাঘাট স্টেশনে ভিক্ষা করে খাওয়া রানু মন্ডল রাতারাতি স্টার হয়ে যায়।

সুরেলা কন্ঠের জন্য রানু মন্ডল লক্ষ লক্ষ মানুষের ভালোবাসা ও আশীর্বাদ পান। লক্ষ্য লক্ষ্য মানুষ তাকে এতটাই ভালবাসি যে সে মুম্বাইতে পাড়ি দেন এবং হিমেশের সাথে গান গাওয়ার সুযোগ পান।

তবে বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়া রানু মন্ডলকে তেমনভাবে আর দেখা যায় না। কথায় বলে আপনি যে জিনিসের যোগ্য নন তা যদি আপনি খুব সহজেই লাভ করেন তবে আপনার অহংকার বৃদ্ধি হবে। অনেকের মতেই ঠিক তেমনটাই ঘটেছে রানু মন্ডলের সাথে। অল্প পরিমাণে নাম যশ ও খ্যাতি অহংকারী করে তুলেছে রানু মন্ডলকে। আর সেই অহংকারী রানু মন্ডল এর কাজ হয়ে দাঁড়ায়। তার ব্যবহারে খুবই তিক্ত হয়ে ওঠে তার অনুরাগীরাই। তবে এখন আপনাদের যে কথাটা শোনাবো তা শুনলে আপনারা অবাক হতে বাধ্য।

সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে রানু মন্ডলকে দেখা যাচ্ছে। উন্মুক্ত বক্ষ যুগল ও ছোট পোশাকে রানু মন্ডলকে দেখা যাচ্ছে সেই ভাইরাল হওয়া ভিডিও টিতে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিওটি পোস্ট হওয়ার সাথে সাথেই চারিদিকে শোরগোল শুরু হয়ে যায়। ভিডিওটি সম্পূর্ন এডিট করা তা নিয়ে কোন সন্দেহ নেই। কারণ রানু মন্ডলের চেহারার সাথে মুখের কোন মিল নেই তা স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে ভিডিওটিতে।

সম্প্রতি রিফেস (Reface) অ্যাপ বলে নতুন অ্যাপ প্রকাশিত হয়েছে। আর এই অ্যাপটি রমরমিয়ে চলছে মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনে। অ্যাপটির বৈশিষ্ট্য হলো এই অ্যাপটির মাধ্যমে একটি মানুষের মুখ অন্য যেকোনো মানুষের মুখে হুবহু বসিয়ে দেওয়া যায়। এর ফলে যে কারোর মনে হতে পারে যে ওই মানুষটি সেই স্থানে উপস্থিত। ভাইরাল হওয়া ভিডিও টিতে ঠিক এই প্রক্রিয়ায় রানু মন্ডলের ছবি ব্যবহৃত হয়েছে। নেটিজেনরা মূলত এই ভিডিওটিকে ট্রোল হিসেবে ব্যবহার করছে।

Related Articles

Back to top button