ভাইরাল

দেখা মিললো দুই মাথাওয়ালা দুর্লভ প্রজাতির সাপ, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

সরীসৃপ দের মধ্যে সাপকে ভয় পায় না এমন কোনো মানুষ নেই। সামান্য বাড়ির মধ্যে সাপ ঢুকে গেলেই আমাদের অবস্থা মর মর হয়ে যায়। তার মধ্যে যদি থাকে সাথে দুটো মাথা? তাহলে ভাবুন তো কি অবস্থা হবে?

এমনই একটি জোড়া মুখওয়ালা সাপের সামনে পড়তে হলো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ কারোলিনা প্রদেশের একজন বৃদ্ধা কে। বৃদ্ধার নাম জিয়েনিন উইলসন। ঘরের মাঝখানে হঠাৎ করে তিনি দেখতে পান কি যেন একটা চলে বেড়াচ্ছে, তারপর একটু এগিয়ে গিয়ে দেখলেন সেটি হল আসল একটি সাপ। এত অব্দি ঠিক ছিল, কিন্তু কাছে গিয়ে বুঝতে পারেন সেই সাপটি র আবার দুটি মাথা।

কিন্তু এক মুহূর্তের জন্য কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে গিয়ে তিনি খুব ঠান্ডা মাথায় কাজ করেছেন। বৃদ্ধা একটি মার্কিন ওয়েবসাইটকে বলেন যে,”দুই মাথা বিশিষ্ট সাপ দেখার পর আমি সঙ্গে সঙ্গে জামাইকে ফোন করি। জামাই আমায় জানায় যে সে খুব তাড়াতাড়ি আসছে”।
ততক্ষণে আমি সাপটির ওপর নজর রাখি, সাপটি কোথায় যাচ্ছে কিনা সেটা দেখার জন্য আমি মোবাইলে ভিডিও তুলে রাখি।

ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করার পর মুহূর্তে হয়ে যায় ভাইরাল। বৃদ্ধার স্নায়ুর জোর কে প্রশংসা করেছেন নেটিজেনরা। অনেকেই বলেছেন যে,”এই বয়সে আপনার সাহস কি সত্যি কুর্নিশ জানাই। আমরা হয়তো এমন একটি সাপ দেখে অজ্ঞান হয়ে পড়ে থাকতাম”।

তবে বৃদ্ধা আরও জানিয়েছেন যে,”সাপটি কিন্তু কোনমতেই বিষধর নয়। জামাই এসে একটি জারের মধ্যে বন্দি করে রাখে সাপটিকে। তার সাপটিকে নিয়ে যাওয়া হয় কাটাঅবা সায়েন্স সেন্টারে। সেখানকার বিজ্ঞানীরা সাপটি দেখামাত্রই বলেছেন যে, এই রকম সাপ একেবারেই বিরল। আপাতত সায়েন্স সেন্টারে রাখা হয়েছে সাপটিকে। সেখানকার গবেষকরা সাপটিকে সংরক্ষণ করে রেখেছেন”।

বৃদ্ধার উপস্থিত বুদ্ধি দেখে প্রশংসা করেছেন সাইন্স সেন্টারের বিশেষজ্ঞরাও। তারা বলেছেন যে, “যে কোন মানুষ স্বাভাবিক অবস্থায় সাপটিকে মেরে ফেলত, কিন্তু বৃদ্ধা তা না করে অতি যত্নের সঙ্গে সাপটিকে ধরে বিজ্ঞান কেন্দ্রে পৌঁছে দিয়েছেন”।

Related Articles

Back to top button