নিউজবিনোদন

এই কারনে আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন রিয়া চক্রবর্তীর মা! সামনে এলো বিস্ফোরক তথ্য

সম্প্রতি রিয়া চক্রবর্তী গ্রেপ্তারের সময় মুখ খুলেছিলেন তার বাবা। তিনি সংবাদমাধ্যমের ওপর তার সমস্ত ক্ষোভ উগরে দিয়ে বলেছিলেন, আমাদের সমস্ত পরিবারকে ধ্বংস করে দিলে সংবাদমাধ্যম। এবার ২৮ দিন জেল বন্দী হয়ে থাকার পর মুক্তি পেলেন রিয়া চক্রবর্তী।রিয়া চক্রবর্তী মুক্তি পেয়ে গেলেও এখনো মুক্তি দেয়া হয়নি তার ভাই সৌভিক চক্রবর্তী কে। প্রায় ১ লক্ষ টাকা জরিমানা দিয়ে মুক্তি পেয়েছেন রিয়া চক্রবর্তী। জামিনের পর তাকে দেখার জন্য কোর্টের বাইরে বের করে দাঁড়িয়ে ছিলেন বহু ব্যক্তি। কিন্তু কারও সঙ্গে কোনো কথা না বলে সোজা গাড়ি করে বেরিয়ে যান রিয়া চক্রবর্তী।

রিয়া চক্রবর্তী জামিনে মুক্তি পাবার পর অবশেষে মুখ খুললেন অভিনেত্রীর মা সন্ধ্যা চক্রবর্তী। তার মেয়ে জামিনে মুক্তি পেলেও এখনো পর্যন্ত ছেলে বন্দি রয়েছেন জেলে। তাই সম্পূর্ণ চিন্তামুক্ত তিনি হতে পারছেন না। ছেলে এবং মেয়ে র জেলবন্দি থাকার সময় তিনি একেবারেই রাতে ঘুমাতে পারতেন না। বারবার রাতে ঘুম ভেঙে যেত। মাঝ রাতে উঠে বসে থাকতেন বিছানার ওপর। অদূর ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তা করতে শুরু করতেন। কিভাবে তার ছেলেমেয়ে জীবন কাটছে জেলের মধ্যে এই চিন্তায় চিন্তায় তার দিন কাটতো।

এটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে সন্ধ্যা চক্রবর্তী আরো জানান যে,এই ঘটনায় তার পরিবার শুধুমাত্র ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাই নয়, সম্পূর্ণ ধ্বংস হয়ে গেছে তার পরিবার। শুধুমাত্র মানসিক অবসাদগ্রস্ত হওয়া নয়, মাঝে তিনি আত্মহত্যা করবেন বলে ভেবেছিলেন। প্রসঙ্গত,বুধবার রিয়া চক্রবর্তী বাইকুল্লা জেল থেকে মুক্তি পাবার পর আস্তে আস্তে মুখ খুলতে শুরু করেন বলিউডি ইন্ডাস্ট্রির বহু অভিনেতা অভিনেত্রীরা।

ইতিমধ্যে রিয়া চক্রবর্তীর মুক্তির পর তার আইনজীবী সতীশ মানশিন্ডে জানিয়েছেন যে, “আমার মক্কেল এই সমস্ত চক্রান্তের বিরুদ্ধে লড়ে যাবে। ওই নির্লজ্জ লোক গুলো তার ইমেজ নষ্ট করে দেবার চেষ্টা করেছে।এরাই আবার আমার ইন্টারভিউ এর জন্য আমার অফিসের বাইরে লাইন দিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে”। ঠিক এইভাবে রিয়া চক্রবর্তী সম্পর্কে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রল করারজন্য এবং রিয়া চক্রবর্তীর ক্ষেত্রে মিডিয়ার ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সতীশ মানশিন্ড।

এছাড়া কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী, রিয়া চক্রবর্তীর পক্ষে কথা বলেছেন। আগামী নির্বাচনে র জন্য রিয়া চক্রবর্তী কে ফাঁসানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।

Related Articles

Back to top button