জুহি চাওলার ফিরিয়ে দেওয়া দ্রপদীর চরিত্রে অভিনয় করে বাজিমাৎ রূপা গাঙ্গুলির

686

নব্বই দশকে বি আর চোপড়া পরিচালিত কালজয়ী মহাভারতের কথা মনে নেই এমন মানুষ বোধহয় আত্সকাঁচ দিয়ে খুঁজলেও মিলবে না। এই শো তে দ্রৌপদীর চরিত্রে বাজিমাত করেছিলেন রূপা গাঙ্গুলি। কিন্তু জানেন কি এই ছবির জন্য পরিচালকের প্রথম পছন্দ ছিলেন জুহি চাওলা।

ছিলেন বিজ্ঞানের ছাত্রী, কিন্তু পরিবারে সদস্যদের অনুরোধে রুপা অডিশন দিয়েছিলেন বিজয় চক্রবর্তীর “নিরুপমা” ছবির জন্য। আর তাতেই চান্স পেয়ে যান রূপা। কিছুদিনের মধ্যে বাংলা ছাড়িয়ে হিন্দি সিনেমায় সফলতা অর্জন করেন অভিনেত্রী। এর পরেই তার কাছে অফার আসে ” মহাভারত” এর পাঞ্চালি হওয়ার জন্য। কিন্তু এই চরিত্রে “পিংক গার্ল”জুহি চাওলাকে কাস্ট করতে চেয়েছিলেন পরিচালক। “কেয়ামত সে কেয়ামত তাক”ছবির কাজে ব্যস্ত থাকায় চরিত্র হাতছাড়া করতে হয় জুহিকে। সেই চরিত্র লুফে নিয়েই নিজের জাত চিনিয়ে দিয়েছিলেন রূপা।

আরও পড়ুন:   এক ছবিতেই মন্দাকিনী সুপারস্টার, ‘রাম তেরী গঙ্গা মৈলী’র জন্য আজও আফসোস পদ্মিনী কোলাপুরীর

“অন্তরমহল”,”বাড়িওয়ালি”,”নামতে নামতে” “অবশেষে”সহ একাধিক বাংলা ছবি ছাড়াও “বাহার আনে তাক”, ” মীনাবাজার” এর মত হিন্দি ছবিতে অভিনয় করে প্রথম সারির অভিনেত্রীদের তালিকায় নাম লিখিয়েছিলেন রূপা। তার অভিনীত ” নয়নচাপার দিনরাত্রি” ছবি জাতীয় পুরস্কার লাভ করে। তবে কেবল ছবি নয় ধারাবাহিকেও অভিনয় করেছেন রূপা। অভিনয় ছাড়াও রবীন্দ্র সঙ্গীতে পারদর্শী রূপা। বহু অ্যালবাম রেকর্ড করেছেন তিনি।

আরও পড়ুন:   চক্রবর্তী পরিবারে নতুন অতিথির আগমন, নেটদুনিয়ায় ভাইরাল রাজ শুভশ্রীর প্রথম সন্তানের ছবি

রাজনীতিতে যোগ দিয়েছেন,হেঁটেছেন সাধারণ মানুষের সঙ্গে। তবে ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে বরাবর মুখ খুলতে নারাজ রূপা। বিয়ে হয়েছিল ব্যাবসায়ী ধ্রুব মুখার্জির সঙ্গে কিন্তু টেকেনি। এরপর ছেলেকে নিয়ে বেরিয়ে এসে ফের লিভ ইন করেছেন। টক্সিক সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসতে কয়েকবার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন রূপা,কিন্তু দমে যাননি। নগ্ন দৃশ্যে অভিনয় করেননি ছেলের সম্মানের জন্য। ছেড়েছিলেন প্রখ্যাত পরিচালকের ছবি। দ্রৌপদীর মতোই প্রতিবাদী সত্তার নারী বাস্তবের দ্রৌপদী।