বিনোদন

জিরো থেকে হিরো! একসময় ছবির জন্য পেতেন মাসিক ১০০ টাকা, বর্তমানে ১৫০০ কোটির মালিক, রইল জিতেন্দ্রর জীবন কাহিনী

অনেকেই ভাবেন বলিউড মানে নোংরা জগতের হাতছানি আর অনেক প্রতিকূলতা। প্রথমটা ভুল হলেও দ্বিতীয়টা হারে হারে সত্যি। এখানে প্রথমেই প্রাধান্য পায় স্টারডম এবং ট্যালেন্ট। ঠিক যেমনটা ঘটেছিল সুপারস্টার জিতেন্দ্রর (jitendra) সঙ্গে। প্রথম ছবির পারিশ্রমিক ছিল মাত্র ১০০ টাকা বর্তমানে তিনি পনেরো হাজার কোটির মালিক।

মুম্বাইয়ের একটি ছোট্ট গ্রামে বাস করতেন জুয়েলারি ব্যবসায়ীর ছেলে রবি কাপুর (Ravi Kapoor) পড়াশোনার সঙ্গে সঙ্গে জুয়েলারি বক্স সাইকেলে করে দূর-দূরান্তে নিয়ে যেতেন তিনি। এরপর একদিন হঠাৎ বাবা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। সংসারের সমস্ত দায়ভার নিতে হয় বড় ভাইকে। হঠাৎই একদিন এক প্রখ্যাত অভিনেতার কস্টিউম ডেলিভারি দিতে গিয়ে পরিচালকের নজরে আসেন রবি। পরিচালক ভি শান্তারাম (V Shantaram) তাকে ছবিতে একটি পার্শ্বচরিত্র করার প্রস্তাব দেন। প্রস্তাব লুফে নেন রবি, তার কাজ ছিল অনুপস্থিত অভিনেতা চরিত্রে অভিনয়। মাত্র 105 টাকা পারিশ্রমিকে রাজি হয়ে যান রবি। এর পরের ছবি “গীত গায়া পাত্থারো নে”(Git gaya Pattharo ne)তে অভিনয় করেন, জিতেন্দ্র নামে।

আরও পড়ুন:   বাবা হলেন মহাভারতের অর্জুন, শাহীর এবং রুচিকার কোল আলো করে এলো ফুটফুটে কন্যা সন্তান

পরিচালক শান্তারামের এই ছবি বক্স অফিসে সুপারহিট হয়। এরপর আর পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি জিতেন্দ্র কে। ঘর সংসার (Ghar sangsar,) তোফা,(Tofa) মকসদ,(Maqsad) মাংগ ভরি সিন্দুর,(Mang bhari sindur) নাগিন (Nagin), জুদাই,(Judai)সুহাগান (Suhagan), সদা সুহাগণ (Sada Suhagan)সহ কয়েকশো সুপারহিট ছবি দর্শকদের উপহার দিয়েছেন তিনি। অ্যাকশন রোমান্স যেন মিলেমিশে একাকার হয়ে যায় জিতেন্দ্রর ছবিতে। তবে শুধু অভিনয় নয় তার ছিপছিপে গড়ন আর অসাধারণ ডান্সিং স্কিলের জন্য ডান্সিং জ্যাকেল (Dancing jackel) নামেও সুবিদিত।

আরও পড়ুন:   মানব দরদী বলিউড অভিনেতা সোনু সুদের বায়োপিকে অভিনয় করবেন এই ব্যক্তি

ভারতীয় সিনেমার অমিতাভ বচ্চনের (Amitav Bacchan)তুলনায় কোনো অংশে কম যান না জিতেন্দ্র। মালা সিনহা (Mala Sinha) থেকে মাধুরী দীক্ষিত (Madhuri Dixit)৭০ থেকে ৯০ দশক জিতেন্দ্র মানেই ধামাকা কিং। এক সময় যিনি সবথেকে কম পারিশ্রমিক নিয়ে ঘরে ফিরতেন তিনিই হয়ে উঠেছিলেন বলিউডের হায়েস্ট পেইড অ্যাক্টর।

Related Articles

Back to top button