করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা! আত্মহত্যা সিআরপিএফ জওয়ানের

করোনাভাইরাস আতঙ্কে জড়িয়ে পড়েছে। সেই চিত্রটি আরও একবার উঠে এল। কাশ্মীরে কেন্দ্রীয় সেনাবাহিনীর এক জওয়ান আত্মহত্যা করলেন। ঘটনাটি দক্ষিণ কাশ্মীরের অনন্তনাগ জেলার মাতান এলাকায়। তিনি সহকারী অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব-ইনস্পেক্টর হিসাবে কেন্দ্রীয় সেনাবাহিনীতে কর্মরত ছিলেন।

মঙ্গলবার তিনি নিজের মাথায় গুলি করে আত্মহত্যা করেন। বন্দুকের শব্দে অন্যান্য সৈন্যরা তাঁর কাছে আসামাত্রই তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় দেখে। অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব-ইনস্পেক্টর হলেন রাজস্থানের জয়সালমারের বাসিন্দা মন ফতেহ সিং। একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার হয়েছে। সেখানে তিনি করোনাভাইরাস সংঘর্ষের ভয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে উল্লেখ করেছেন।

একজন প্রবীণ কর্মকর্তা বলেছিলেন, “সুইসাইড নোটে অসঙ্গতি রয়েছে তবে করোনায় সংক্রমণের ঝুঁকি ছিল।” ফতেহ সিং দক্ষিণ কাশ্মীরের অনন্তনাগ জেলার মাতান এলাকায় সিআরপিএফের 49 তম ব্যাটালিয়নে কর্মরত ছিলেন। সারা দিন কাজ করে ওই এএসআই তার ইউনিটে ফিরেছেন বলে জানা গেছে। আরও জানা গেছে যে ইউনিটের কেউই কোনও অসুস্থতার অভিযোগ করেননি। তবে পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

এদিকে, করোনার আক্রমণে কলকাতায় মারা গেলেন আরও একজন সিআইএসএফ কর্মকর্তা। তিনি গার্ডেনরিচ শিপ বিল্ডার্সে কর্মরত ছিলেন। তবে স্বাস্থ্য অধিদফতর এখনও এ বিষয়ে কোন মন্তব্য করেনি। ভারতীয় জাদুঘরে পরে এবার গার্ডেনরিচ শিপ বিল্ডার্সে হানা দিল করোনা। সেখানে কর্মরত অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব ইন্সপেক্টর পদমর্যাদার সিআইএসএফ অফিসারকে করোনার লক্ষণ সহ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল।

সূত্রের খবর, আহত সিআইএসএফ অফিসার কলকাতার কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। যখন তার লালা নমুনা পরীক্ষার জন্য প্রেরণ করা হয়, সেই রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তবে করোনায় মৃত্যু কিনা সে বিষয় সিআইএসএফের তরফে কিছু জানা যায়নি।